বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পরিচালক আবু সাইদ বর্তমানে চট্টগ্রামের বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিসে আর উপপরিচালক রাজ আহমেদ পাসপোর্টের উত্তরা অফিসের ই-পাসপোর্ট এবং স্বয়ংক্রিয় বর্ডার কন্ট্রোল ব্যবস্থাপনা প্রবর্তন প্রকল্পে কর্মরত। তাঁদের বিরুদ্ধে ঘুষের বিনিময়ে পাসপোর্ট দেওয়াসহ অবৈধভাবে সম্পদ অর্জনের অভিযোগ পেয়েছে দুদক।

দুদক সূত্র জানায়, বহির্গমন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের বেশ কিছু কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও অবৈধ উপায়ে সম্পদ অর্জনের অভিযোগ পেয়েছে দুদক। সেগুলো অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে তালিকা ধরে কর্মকর্তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

এর আগে গত জানুয়ারিতে পাসপোর্ট অধিদপ্তরের উপপরিচালক মাহের উদ্দিন শেখকে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুদক। তাঁর বিরুদ্ধে ভারতীয় এক নাগরিককে পাসপোর্ট দেওয়ার ঘটনায় সংশ্লিষ্টতাসহ বিপুল পরিমাণ অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ পায় দুদক। সর্বশেষ গত ৩০ জুন অধিদপ্তরের উপসহকারী পরিচালক মো. মোতালেব হোসেন ও তাঁর স্ত্রী ইসরাত জাহানের বিরুদ্ধে পৃথক মামলা করে দুদক।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন