বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিশ্বের ২৯টি দেশের প্রতিনিধিদল এবারের প্রতিযোগিতায় তাদের ধারণা (আইডিয়া) জমা দেয়। এর মধ্যে চূড়ান্ত পর্বের জন্য নির্বাচিত হয় বাংলাদেশসহ ১২টি দলের ধারণা। বাংলাদেশ দলের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেন আদিত্য কুমার চৌধুরী ও ইফতেখার খালেদ। দুজনই মাস্টারমাইন্ড ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের শিক্ষার্থী।

আদিত্য-ইফতেখারের প্রকল্প ছিল ‘পানি বিশুদ্ধকরণে ওলিফেরা (শজনেবীজ) মিশিয়ে পাউডার তৈরি’। এ পদ্ধতি ব্যবহারে অল্প খরচে পানির ময়লা ও ব্যাকটেরিয়া হ্রাস করা সম্ভব।

প্রতিবছর আগস্টে বিশ্ব পানি সপ্তাহে স্টকহোমে অনুষ্ঠিত হয় জুনিয়র ওয়াটার প্রাইজ প্রতিযোগিতা। তরুণদের পানি ও পরিবেশগত বিষয়ে জড়িত হওয়ার জন্য অনুপ্রাণিত করতে এ আয়োজন করা হয়। বিশ্বের ৩০টির বেশি দেশের ১৫-২০ বছর বয়সী তরুণেরা এতে অংশগ্রহণ করেন। অন্যান্য বছর সুইডেনের স্টকহোমে সরাসরি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হলেও করোনা মহামারির জন্য সম্পূর্ণ ভিন্নভাবে অনলাইনেই আয়োজন করা হয়েছে এবারের প্রতিযোগিতা।

আন্তর্জাতিক এ প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্বকারী তরুণদের পাঠাতে ২০১৫ সালে বাংলাদেশ স্টকহোম জুনিয়র ওয়াটার প্রাইজের যাত্রা শুরু করে। এ বছর ষষ্ঠবারের মতো আয়োজিত হয় বাংলাদেশ স্টকহোম জুনিয়র ওয়াটার প্রাইজ ২০২০। বাংলাদেশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের সঙ্গে লড়াই শেষে আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের সুযোগ পায় আদিত্য-ইফতেখার।


২০১৭ সালে আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ স্বীকৃতি ডিপ্লোমা অব এক্সিলেন্স অর্জন করেছিল বাংলাদেশ দল। বাংলাদেশে এ প্রতিযোগিতার মূল আয়োজক হাউস অব ভলান্টিয়ার্স ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ। সহযোগী আয়োজক ওয়াটার এইড বাংলাদেশ ও টেকনিক্যাল পার্টনার এসটেক্স।

এ প্রতিযোগিতার বিষয়ে বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন