default-image

অর্থ পাচার মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য প্রশান্ত কুমার হালদার ওরফে পি কে হালদারের সহযোগী শুভ্রা রানী ঘোষের পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। সোমবার ঢাকার জ্যেষ্ঠ মহানগর বিশেষ জজ কে এম ইমরুল কায়েশ এ আদেশ দেন।

দুদকের আইনজীবী মাহমুদ হোসেন জাহাঙ্গীর প্রথম আলোকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। প্রায় সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ করে দেশ থেকে পালিয়ে গেছেন পি কে হালদার। আর্থিক সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান পিপলস লিজিং ও ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের শীর্ষ পদে তিনি।

বিজ্ঞাপন

ইন্টারন্যাশনাল লিজিং থেকে ওকায়ামা লিমিটেড নামের একটি কাগুজে প্রতিষ্ঠানের নামে ৮৭ কোটি ৬০ লাখ টাকা ঋণ নিয়ে আত্মসাৎ করা হয় বলে অভিযোগ দুদকের। এই ওকায়ামা লিমিটেডের পরিচালকদের একজন শুভ্রা রানী ঘোষ। সোমবার যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফিরলে শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করে দুদক।

দুদকের আইনজীবী মাহমুদ হোসেন বলেন, ইন্টারন্যাশনাল লিজিং থেকে ঋণের নামে টাকা আত্মসাতের অভিযোগে রোববার পি কে হালদারসহ ১৯ জনের নামে মামলা করে দুদক। এই মামলার আসামি শুভ্রা রানী ঘোষ। মামলার অপর আসামিদের গ্রেপ্তার এবং জাল-জালিয়াতির বিস্তারিত তথ্য জানার জন্য দুদকের পক্ষ থেকে আসামিকে আদালতে হাজির করে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করা হয়। শুনানি নিয়ে আদালত শুভ্রার পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। আদালতে শুভ্রার পক্ষে কোনো আইনজীবী ছিলেন না।

এর আগে ১৬ মার্চ দুদকের করা অর্থ পাচারের আরেক মামলায় ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের ভাইস প্রেসিডেন্ট নাহিদা রুনাইসহ তিনজনের পাঁচ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। নাহিদাও পি কে হালদারের ঘনিষ্ঠ সহযোগী ছিলেন।

ওই দিনই পি কে হালদারের আরেক ঘনিষ্ঠ সহযোগী অবন্তিকা বড়াল অর্থ পাচারের দোষ স্বীকার করে ঢাকার সিএমএম আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। তাঁর আগে জবানবন্দি দিয়েছেন ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাশেদুল হক। তাঁর জবানবন্দিতে নাহিদা রুনাইসহ বাংলাদেশ ব্যাংকের দুজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার নাম উঠে আসে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন