দোকানের ভেতরে ঘুমিয়ে ছিলেন মোহাম্মদ আলমগীর (৩২)। গভীর রাতে নিজের দোকানে আগুন ধরলেও তিনি বের হতে পারেননি। পুড়ে অঙ্গার হয়েছেন দোকানেই। চট্টগ্রামের পটিয়ার মনসারটেক এলাকায় গত শনিবার গভীর রাতে চারটি দোকানে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।
ফায়ার সার্ভিস সূত্র ও ক্ষতিগ্রস্ত দোকানমালিকেরা জানান, গত শনিবার রাত তিনটার দিকে মনসারটেক এলাকায় ইয়াছিন আউলিয়া মার্কেটের একটি দোকান থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। এতে হাজী জালাল ফেন্সী ষ্টোর, তৌহিদ ষ্টোর, মোজাম্মেল ষ্টোর ও শাহগদী অটো পার্টস দোকানে আগুন ধরে যায়। মুদিদোকান তৌহিদ ষ্টোরের ভেতরে ঘুমিয়ে ছিলেন দোকানমালিক আলমগীর। তিনি দোকান থেকে বের হতে পারেননি। আগুনে পুড়ে তাঁর মৃত্যু হয়।
দোকানমালিকেরা জানান, শাহগদী অটো পার্টস দোকানে থাকা একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশাও আগুনে পুড়ে গেছে। এতে কয়েক লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।
মোহাম্মদ আলমগীর উপজেলার জঙ্গলখাইন ইউনিয়নের মৃত জাফর আহমদের ছেলে।
হাজী জালাল ফেন্সী ষ্টোরের মালিক মো. জালাল আহমেদের ছেলে সাজ্জাদ হোসেন বলেন, পটিয়া ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। তাঁরা তৌহিদ ষ্টোরের দরজা ভেঙে ভেতর থেকে আলমগীরের লাশ উদ্ধার করেন।
তবে আলমগীরের খালাতো ভাই মোহাম্মদ নাছির মুন্সি দাবি করেন, কেউ শত্রুতা করে দোকানের পেছনের দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকে আলমগীরকে মারধর করার পর আগুন ধরিয়ে দিয়েছে।
পটিয়া ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা দোলন আচার্য বলেন, তৌহিদ ষ্টোর থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটেছে। আগুনে দোকানের ভেতরেই একজন পুড়ে মারা যান। ধারণা করা হচ্ছে, বৈদ্যুতিক শটসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটেছে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন