রিমান্ডে থাকা ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এনামুল কবির চমকে দেওয়ার মতো অনেক তথ্য দিয়েছেন বলে পুলিশ দাবি করেছে। নাশকতা সৃষ্টি করে দেশকে অস্থিতিশীল করতে শিবিরের অনেক নেতা সারা দেশে ছড়িয়ে রয়েছেন। তাঁদের নাম-ঠিকানাও এনামুল পুলিশকে দিয়েছেন। তাঁর দেওয়া তথ্য পুলিশ সদর দপ্তর ও বিশেষ শাখায় (এসবি) পাঠানো হচ্ছে।
গত শুক্রবার ভোরে এনামুল কবিরসহ তিনজনকে পুলিশ চট্টগ্রাম নগরের বাকলিয়া থানাধীন বগারবিল এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে। ১২ ফেব্রুয়ারি ঢাকা থেকে ট্রেনে চট্টগ্রামে আসেন তিনি। গত শনিবার পুলিশ তাঁকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেয়। আজ বৃহস্পতিবার আবার ১০ দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করবে পুলিশ।
এনামুলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশের তিনজন অতিরিক্ত উপকমিশনার এবং একজন সহকারী কমিশনারের নেতৃত্বে চারটি দল গঠন করা হয়। গত রোববার থেকে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।
জিজ্ঞাসাবাদের সঙ্গে সম্পৃক্ত দায়িত্বশীল একাধিক পুলিশ কর্মকর্তা নাম না প্রকাশের শর্তে প্রথম আলোকে জানান, দেশের বিভিন্ন জায়গায় শিবির নেতাদের দায়িত্ব বণ্টন করে দেওয়া হয়। বেশির ভাগ জেলার স্পর্শকাতর জায়গায় হামলা এবং জানমালের ক্ষয়ক্ষতি করে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি করা ছিল তাঁদের উদ্দেশ্য। একইভাবে চট্টগ্রামের জ্বালানি তেলের মূল স্থাপনায় হামলার পরিকল্পনা ছিল। সেখানে হামলা হলে সারা দেশ জ্বালানি সংকটে পড়ত।
নগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার বনজ কুমার মজুমদার জানান, এনামুল গুরুত্বপূর্ণ অনেক তথ্য দিয়েছেন। তা পুলিশ সদর দপ্তর ও বিশেষ শাখায় পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন