স্বাস্থ্যকর্মী বাড়ি বাড়ি গিয়ে সেবা দিলে পুষ্টি পরিস্থিতির উন্নতি হয়। কোন খাবার কোন বয়সে কীভাবে খাওয়াতে হবে, তা মাকে শেখালে শিশুর অপুষ্টি দূর হয়। পুষ্টিকর্মীরা এই উন্নতি সম্ভব করেছেন। বেসরকারি একটি প্রকল্প মূল্যায়ন ফলাফলে এটা দেখা গেছে। বেসরকারি সংস্থা ব্র্যাক ও এলাইভ অ্যান্ড থ্রাইভ ইনিসিয়েটিভের যৌথভাবে পরিচালিত এক প্রকল্পের ফলাফল মূল্যায়নে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

২০০৯ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত দেশের ৫০টি উপজেলায় ‘এলাইভ অ্যান্ড থ্রাইভ ইনিসিয়েটিভ’ নামের প্রকল্প বাস্তবায়ন করে ব্র্যাক ও এলাইভ অ্যান্ড থ্রাইভ। আজ মঙ্গলবার রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টারে এই প্রকল্পের মূল্যায়ন ফলাফল আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করা হয়। সরকারের জনস্বাস্থ্য পুষ্টি প্রতিষ্ঠান, ব্র্যাক, এলাইভ অ্যান্ড থ্রাইভ, এফএইচআই৩৬০ এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

ফলাফলে দেখা গেছে, প্রকল্পের আওতাধীন উপজেলাগুলোতে জন্মের পরপরই শিশুকে শালদুধ খাওয়ানোর হার ৯০ শতাংশের বেশি। ছয় মাস বয়স পর্যন্ত শিশুকে শুধু বুকের দুধ খাওয়ানোর হার ৮৪ শতাংশ। এক বছর পর্যন্ত বুকের দুধ খাওয়া শিশু ১০০ শতাংশ। এই প্রকল্প বাস্তবায়িত হয়নি এমন উপজেলাগুলোতে এই হার যথাক্রমে ৭২, ৬৪ ও ৯৮ শতাংশ।

অনুষ্ঠানে বলা হয় ‘এলাইভ অ্যান্ড থ্রাইভ ইনিসিয়েটিভ’ প্রকল্প বাস্তবায়িত হয়েছে এমন ১০টি উপজেলা ও প্রকল্প বাস্তবায়িত হয়নি এমন ১০ উপজেলার তথ্য তুলনা করে এই মূল্যায়ন ফলাফলে তুলে ধরা হয়েছে।

ব্র্যাকের স্বাস্থ্য, পুষ্টি ও জনসংখ্যা কর্মসূচির সমন্বয়ক মোহাম্মদ রাইসুল বলেন, ব্র্যাকের কর্ম এলাকায় স্বাস্থ্য সেবিকা কাজ করছেন। এর অতিরিক্ত ‘এলাইভ অ্যান্ড থ্রাইভ ইনিসিয়েটিভ’ প্রকল্পের আওতায় প্রতিটি ইউনিয়নে দুজন করে এক হাজার ২৯ জন পুষ্টিকর্মী নিয়োগ দেওয়া হয়। বিশেষ প্রশিক্ষণ পাওয়া এসব স্বাস্থ্যকর্মী বাড়ি বাড়ি গিয়ে পুষ্টি সেবা দিয়েছেন। কর্মীরা অন্যান্য কাজের পাশাপাশি গর্ভবতী মায়ের করণীয় সম্পর্কে বলেছেন। মা নবজাতককে কীভাবে বুকের দুধ খাওয়াবেন, তা হাতে-কলমে শিখিয়েছেন, কোন বয়সে কতটুকু পরিপূরক খাবার শিশুকে খাওয়াতে হবে তা পরিবারের সদস্যদের বলেছেন।

মূল্যায়ন ফলাফলে দেখা গেছে, প্রকল্প এলাকায় ঠিকভাবে বুকের দুধ খাওয়াতে জানেন এমন মায়ের হার অন্য এলাকার চেয়ে বেশি। প্রকল্প এলাকায় ৫০ শতাংশ মা বলেছেন, তাঁরা যখন সমস্যা নিয়ে চিকিত্সকের কাছে গেছেন, তখন চিকিত্সকেরা শিশুকে বাণিজ্যিক খাবার খাওয়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন।

অনুষ্ঠানে জনস্বাস্থ্য পুষ্টি প্রতিষ্ঠানের পরিচালক মোহাম্মদ হেদায়েতুল ইসলাম বলেন, পুষ্টি কার্যক্রম জোরদার করার জন্য দেশের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মাঠকর্মীদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। এই কাজে তিনি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতা চান।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে ব্র্যাকের স্বাস্থ্য, পুষ্টি ও জনসংখ্যা কর্মসূচির পরিচালক কাওসার আফসানা, এলাইভ অ্যান্ড থ্রাইভের চিফ অব পার্টি সৌমিত্র রায় বক্তব্য দেন। 

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন