কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে দুর্বৃত্তদের ছোড়া পেট্রলবোমা হামলায় নিহত কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার বাসিন্দা মোহাম্মদ ইউসুফ, আবু তাহের ও রাশেদুল ইসলামের পরিবারকে অর্থ–সহায়তা দেওয়া হয়েছে। ৯ ফেব্রুয়ারি নিহত ব্যক্তিদের স্মরণে বরইতলী ইউনিয়নের গোবিন্দপুর এলাকায় অনুষ্ঠিত সভায় এ অর্থ প্রদান করা হয়। স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান জিয়াউদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সাংসদ মোহাম্মদ ইলিয়াছ। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জাফর আলম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাহেদুল ইসলাম, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রভাষ চন্দ্র ধর ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. আহসান উল্লাহ।
প্রশাসন সূত্র জানায়, সাংসদ মোহাম্মদ ইলিয়াছ ও কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. রুহুল আমিন ৬০ হাজার টাকা করে এবং চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জাফর আলম ৩০ হাজার টাকা দিয়ে একটি তহবিল গঠন করেন। এই তহবিল থেকে নিহত তিনজনের পরিবারের সদস্যদের হাতে ৫০ হাজার টাকা করে তুলে দেওয়া হয়। এর আগে কুমিল্লা জেলা প্রশাসন ১০ হাজার টাকা করে অর্থ–সহায়তা দিয়েছিল নিহত ব্যক্তিদের পরিবারকে।
৩ ফেব্রুয়ারি ভোর সাড়ে তিনটায় কুমিল্লার চৌদ্দগ্রােমর জগমোহনপুর এলাকায় আইকন পরিবহন নামের একটি বাসে দুর্বৃত্তদের ছোড়া পেট্রলবোমায় পুড়ে মারা যান চকরিয়ার মোহাম্মদ ইউছুফ ও আবু তাহের। পরদিন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তাঁদের সঙ্গী রাশেদুল ইসলাম। তাঁরা তিনজনই কাতার যাওয়ার উদ্দেশ্যে ঢাকা যাচ্ছিলেন।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন