default-image

ঢাকা-১৮ আসনের উপনির্বাচনে প্রচারণা চালাতে গতকাল মঙ্গলবার প্রধান দুটি দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রার্থীরা কর্মী-সমর্থক নিয়ে মাঠে নামেন। এর মধ্যে বিএনপির কর্মীদের প্রচারণায় হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিপরীতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী প্রচারণা চালিয়েছেন উৎসবমুখর পরিবেশে।

বিএনপির সূত্রে জানা যায়, গতকাল সকাল ১০টার দিকে বিএনপির নেতা-কর্মীরা মাজার চৌরাস্তা এলাকায় জড়ো হতে থাকেন। সেখানে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা হামলা চালান। এতে ৪০ জন আহত হন। বেলা সোয়া ১১টার দিকে বিমানবন্দর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় বিএনপির নেতা-কর্মীরা জড়ো হন। সেখান থেকে মিছিল নিয়ে উত্তরা ১ নম্বর সেক্টরে গণসংযোগ করে বিএনপি। পরে জসীমউদ্‌দীন সড়কে পথসভা হয়।

বিজ্ঞাপন
default-image

বিএনপির প্রার্থী এস এম জাহাঙ্গীর বলেন, ‘মাজার এলাকায় পৌঁছানোর আগেই আমাকে পুলিশের পক্ষ থেকে ফোন করে ঘটনাস্থলে যেতে মানা করা হয়। বলে, পরিস্থিতি তাদের নিয়ন্ত্রণের বাইরে। অথচ প্রতিদিন আমরা পুলিশের অনুমতি নিয়েই গণসংযোগের স্থান নির্ধারণ করি।’

আওয়ামী লীগের সূত্রে জানা যায়, দুপুরে বাদ্য–বাজনার তালে উত্তরা ১২ নম্বর সেক্টর কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনে থেকে প্রচারণা শুরু করে দলটি। চণ্ডালভোগ পুরোনো সেতু হয়ে ডিএনসিসির ৫৩ নম্বর ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকায় চলে গণসংযোগ।

বিএনপির গণসংযোগে হামলার বিষয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হাবিব খান বলেন, মনোনয়ন নিয়ে বিএনপির কোন্দল রয়েছে। তাঁরা নিজেরাই নিজেদের প্রচারণায় বাধা দিচ্ছেন। এতে মারামারির ঘটনাও ঘটছে।

মন্তব্য পড়ুন 0