বিজ্ঞাপন

বিপ্লব বড়ুয়া বলেন, ঈদের এই দুই দিন বিশেষ করে গণভবন সাধারণ মানুষের জন্য উন্মুক্ত থাকে। যেকোনো মানুষ গণভবনে ঢুকতে পারে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সাধারণ মানুষের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করেন। কিন্তু করোনা মহামারির কারণে গত বছর থেকে প্রধানমন্ত্রী জনগণের সেই অংশগ্রহণ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। এটা তাঁর জন্য একটি বেদনার বিষয়। এ জন্য একটি অপূর্ণতা থেকে যায়। এক সরকারি কর্মসূচিতে তিনি সেই বেদনার কথা বলেছেন। সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে চলে এলে গণভবন আবার সাধারণ মানুষকে অভ্যর্থনা জানাবে।

প্রধানমন্ত্রী ঈদুল আজহা উপলক্ষে আজ দুটি গরু ও ছয়টি ছাগল কোরবানি দিয়েছেন। এই কোরবানির মাংস গণভবনের কর্মচারী থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষের মধ্যে বিলিয়ে দেওয়া হবে। প্রধানমন্ত্রী বরাবরের মতো আজও দুস্থ মানুষের জন্য এতিমখানায় খাবার পাঠিয়েছেন।

বিপ্লব বড়ুয়া জানান, আজ সারা দিন গণভবনেই কাটাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। টেলিফোনে দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন। তিনি অনেককেই খুদে বার্তা দেন এবং গ্রহণ করেন। আজ অন্যবারের মতো গণভবনের স্টাফ এবং নিরাপত্তার দায়িত্বে যাঁরা থাকেন, তাঁদের জন্য বিশেষ খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন