বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

‘দেশে গণতন্ত্র নেই’, মির্জা ফখরুলের এমন বক্তব্যের জবাবে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী বলেন, বিএনপির এমন অভিযোগ ভিত্তিহীন, পাগলের প্রলাপ ছাড়া আর কিছু নয়। গণতন্ত্র একটি বিবর্তনমূলক প্রক্রিয়া। রাতারাতি গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হয় না। বরং বিএনপিই গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে পদে পদে বাধা দিচ্ছে। তারপরও চড়াই-উতরাই অতিক্রম করে গণতন্ত্র এগিয়ে যাচ্ছে।

আওয়ামী লীগের নেতৃত্বেই এ দেশ মুক্তিযুদ্ধে বিজয়ী হয়, দেশ স্বাধীন হয়, জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, এ দেশের সব অর্জন ও মানুষের সুখ-দুঃখের সঙ্গে রয়েছে আওয়ামী লীগ, বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনা।

আওয়ামী লীগ রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় বিশ্বাসী নয়, বরং বিএনপিই এ দেশে প্রতিহিংসার রাজনীতির পথপ্রদর্শক বলে মন্তব্য করেন সেতুমন্ত্রী।

খালেদা জিয়ার মামলা ও চিকিৎসা নিয়ে বিএনপির নেতারা একধরনের রহস্যময় আচরণ করছেন বলে মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের। তিনি মির্জা ফখরুলকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘খালেদা জিয়াকে আপনারা নিজ নিজ পদ রক্ষার জন্য দাবার ঘুঁটি বানাবেন আর দায় চাপাবেন সরকারের ওপর, তা হতে পারে না। তাঁর মুক্তি ও চিকিৎসার চেয়ে রাজনীতি করতেই বিএনপি নেতা বেশি আগ্রহী।’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খালেদা জিয়ার প্রতি অধিকতর মানবিক আচরণ করেছেন। তাঁর চিকিৎসা ও বয়সের কথা বিবেচনায় তাঁকে ঘরে চিকিৎসার সুযোগ করে দিয়েছেন। শেখ হাসিনার মহানুভবতার প্রতি বিএনপি নেতাদের কৃতজ্ঞ থাকা উচিত।

ওবায়দুল কাদের বলেন, পবিত্র ঈদের দিনে বিএনপির নেতারা জিয়াউর রহমানের সমাধিস্থলে গিয়ে বলেছেন, তাঁদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নাকি নির্বাসনে! সেতুমন্ত্রী বিএনপির নেতাদের প্রতি প্রশ্ন রেখে বলেন, তারেক রহমান একজন দণ্ডিত আসামি। তিনি যদি নির্বাসনেই থাকেন, তাহলে দেশে ফিরে আসছেন না কেন? আসলে তারেক রহমান নির্বাসনে, নাকি মুচলেকা দিয়ে দেশত্যাগ করেছেন, তা কি বিএনপির নেতারা ভুলে গেছেন?

এ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, দেশে জেল-জুলুমের ভয় করলে রাজনীতি করছেন কেন? কেন তারেক রহমান নির্বাসনে গেলেন মুচলেকা দিয়ে? জনগণকে বোকা বানানোর দিন এখন আর নেই।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন