default-image

অনিরাময়যোগ্য অন্ধত্বের প্রধান কারণ হলো গ্লুকোমা রোগ। প্রাথমিক পর্যায়ে চিকিৎসাই গ্লুকোমাজনিত অন্ধত্ব প্রতিরোধের একমাত্র উপায়।

বিশ্ব গ্লুকোমা সপ্তাহ-২০২১ উপলক্ষে আজ শুক্রবার রাজধানীর উত্তরায় বেসরকারি ঢাকা আই কেয়ার হসপিটালে আয়োজিত এক সেমিনারে চক্ষু বিশেষজ্ঞরা এসব কথা বলেন।

দিনভর হাসপাতালটিতে ১৩০ ব্যক্তিকে বিনা মূল্যে চোখের চাপ ও গ্লুকোমা রোগ শনাক্তের পরীক্ষা করা হয়। ৭ মার্চ থেকে শুরু হওয়া গ্লুকোমা সপ্তাহ শেষ হবে ১৩ মার্চ।

সেমিনারে গ্লুকোমা রোগ ও তা প্রতিরোধে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চক্ষু বিভাগের প্রধান হারুন-উর-রশীদ। তিনি বলেন, গ্লুকোমা দৃষ্টির নীরব ঘাতক। কিন্তু এ দেশের প্রায় ৯০ শতাংশ গ্লুকোমা রোগী জানেন না যে তাঁরা গ্লুকোমায় আক্রান্ত।

বিজ্ঞাপন

অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন ঢাকা আই কেয়ার হসপিটালের উপমহাব্যবস্থাপক এ কে এম মাহমুদুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ গ্লুকোমা সমিতির সভাপতি মিজানুর রহমান, সংগঠনটির সাবেক মহাসচিব কামরুল ইসলাম প্রমুখ। অনুষ্ঠান শেষে গ্লুকোমা রোগ সম্পর্কে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন