দলিল

প্রাথমিক প্রতিক্রিয়া

বিজ্ঞাপন
default-image

৬ দফা ছিল স্বাধীনতার পথে প্রথম সোপান। কিন্তু শুরুতে এ নিয়ে দেখা দিয়েছিল মিশ্র প্রতিক্রিয়া

দৈনিক ইত্তেফাক, ২৬ মার্চ ১৯৬৬

আঞ্চলিক স্বায়ত্তশাসন কেন

যখনই এ অঞ্চলের মানুষ অন্যায়–অসাম্যের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েছেন, তখনই তাদের দেওয়া হয়েছে বিচ্ছিন্নতাবাদের, আঞ্চলিকতাবাদের, সংহতি বিনষ্টের অপবাদ।...জননেতাদের শত্রুর চর আখ্যায়িত করা হয়েছে। ঐতিহাসিক লাহোর প্রস্তাবকালে মরহুম শেরেবাংলা এ কে ফজলুল হককে শেষ বয়সে অন্তরীণাবদ্ধ করা হয়েছে। সর্বজনমান্য হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীকে কারারুদ্ধ ও দেশ হতে বহিষ্কার করা হয়েছে। তরুণ বিপ্লবী নেতা শেখ মুজিবসহ এতদঞ্চলের প্রায় তিন হাজার রাজনৈতিক কর্মীকে কারাগারের অন্ধ প্রকোষ্ঠে নিক্ষেপ করা হয়েছে।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে আঞ্চলিক স্বায়ত্তশাসন আমরা চাই কেন?

এর একমাত্র এবং সহজ ও সোজা উত্তর হচ্ছে পাকিস্তানকে শক্তিশালী করার জন্য। কারণ, সারা দেহে রক্ত সঞ্চালন বন্ধ হয়ে মুখে রক্ত সঞ্চালনের নাম যেমন স্বাস্থ্য নয়, তেমনি বৃহত্তর জনসমাজকে সর্বনাশের দ্বারপ্রান্তে ঠেলে দিয়ে মুষ্টিমেয় ভাগ্যবানের হাতে সম্পদ পুঞ্জীভূতকরণ এবং সকল মানুষকে অধিকারবঞ্চিত রেখে এক স্থানে এবং সমস্ত শক্তি এক হাতে ধারণের অনুকূলে যুক্তি প্রদর্শন করছেন।

দৈনিক পাকিস্তান, ১৮ মার্চ ১৯৬৬

দফায় দফায়

মিথ্যা প্রতিশ্রুতির রঙিন ফানুস উড়াইয়া যাহারা জনসাধারণের ঐক্যকে নষ্ট করিতে চাহিতেছেন, তাহারা যে দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের স্বার্থে কাজ করিতেছেন না, তা কাহাকেও বলিয়া দিতে হয় না। এ দেশের রাজনৈতিক স্বাধীনতাকে অর্থনৈতিক স্বাধীনতার মাধ্যমে পরিপূর্ণ করিয়া তোলাই জনসাধারণের ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টার লক্ষ্য। রাজনৈতিক কলহ–কোলাহলে অভ্যন্তরীণ ঐক্যকে ক্ষয় করিয়া দিয়া দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বকে যাহারা বিপদগ্রস্ত করিয়া তুলিতেছে, জনসাধারণ তাহাদের বিরুদ্ধে রুখিয়া দাঁড়াইবে। এ দেশের মানুষ আর দফার দফায় প্রবঞ্চিত হইতে চাহে না।

পয়গাম, ৩১ মার্চ ১৯৬৬

ছয় দফার নামে

বিরোধী দলগুলির বিচিত্র ভিন্ন ভিন্ন যুক্ত এবং বিযুক্ত বহু দফার রাজনীতির স্বরূপ জনগণ ভালো করিয়াই এত দিনে ধরিয়া ফেলিয়াছে। ১৯৫৪ সন হইতে তাঁরা বারবার এসব চাল দফায় দফায় দিয়া আসিতেছেন। ১৯৫৪ হইতে ১৯৬৬ সনের ব্যবধান উল্লেখযোগ্য। জনগণ তাদের স্বার্থের শত্রু–মিত্রকে এই সময়ের মধ্য ভালোভাবেই চিনিয়া ফেলিয়াছেন। সুতরাং ছয় দফা হোক আর যেকোনো দফাই হোক, আর কোনো ভাঁওতায়ই তারা এবার ভুল করিবে না, এ বিশ্বাস আমাদের আছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন