বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আদালতসংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, রাজধানীর শেরেবাংলা নগর, হাজারীবাগ ও কামরাঙ্গীরচর থানায় করা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের পৃথক তিন মামলায় ফটোসাংবাদিক শফিকুলের বিরুদ্ধে আগেই আদালতে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। আদালত এই তিন মামলায় শফিকুলের বিরুদ্ধে আজ অভিযোগ গঠন করেন। অভিযোগ গঠনের সময় নিজেকে নির্দোষ দাবি করে আদালতের কাছে ন্যায়বিচার চান শফিকুল।

গত বছরের ৯ মার্চ ফটোসাংবাদিক শফিকুল, মানবজমিনের প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরীসহ ৩২ জনের বিরুদ্ধে শেরেবাংলা নগর থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন মাগুরা-১ আসনের সাংসদ সাইফুজ্জামান শিখর। পরে শফিকুলের বিরুদ্ধে হাজারীবাগ ও শেরেবাংলা নগর থানায় একই আইনে আরও দুটি মামলা হয়। যুব মহিলা লীগের দুই নেত্রী এই মামলা দুটি করেন।

গত বছরের ১০ মার্চ রাজধানীর বকশীবাজার এলাকা থেকে নিখোঁজ হন ফটোসাংবাদিক শফিকুল।

৫৩ দিন পর গত বছরের ৩ মে বেনাপোলে শফিকুলকে পাওয়ার কথা জানানো হয়। তখন তাঁর বিরুদ্ধে ভারত থেকে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশের অভিযোগে বেনাপোল বন্দর থানায় মামলা করা হয়। এ মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। পরে ঢাকায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের একাধিক মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

পৃথক মামলায় গত বছরের ৩ মে থেকে কারাগারে ছিলেন শফিকুল। গত বছরের ২৫ ডিসেম্বর জামিনে মুক্তি পান তিনি।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন