default-image

রাজধানীর পশ্চিম ধানমন্ডি এলাকায় এক নারীকে হত্যাচেষ্টার মামলায় এস এম হাক্কানি খসরু নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে হাজারীবাগ থানা-পুলিশ। মঙ্গলবার তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। আদালত সূত্র বলছে, বুধবার ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালত তাঁকে পাঁচ হাজার টাকা মুচলেকায় জামিন মঞ্জুর করেছেন।

গত সোমবার রাজধানীর একটি কলেজের উচ্চমাধ্যমিকের এক ছাত্রী ফেসবুক লাইভে এসে বলে, ‘প্লিজ, কেউ আমার আম্মুকে বাঁচান, প্লিজ। একে পুলিশ ধরে না। আমার বাবা, আমার আম্মুকে খুব মারতেছে। কেউ বাঁচাচ্ছে না। কেউ বাঁচান, প্লিজ।’ মায়ের সামনে ভয়ার্ত মেয়েটির এই আর্তনাদ ফেসবুকে ভাইরাল। ঘটনাটি পুলিশের নজরে এলে মঙ্গলবার হাজারীবাগ থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়।

হাজারীবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাজেদুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, এস এম হাক্কানি খসরুর বিরুদ্ধে তাঁর সাবেক স্ত্রী মামলা করেন। সেই মামলায় হাক্কানিকে গ্রেপ্তার করে ঢাকার সিএমএম আদালতে পাঠানো হয়।
ঢাকা মহানগর পুলিশের ধানমন্ডি জোনের সহকারী কমিশনার (এসি) মো. হাসিনুজ্জামান প্রথম আলোকে বলেন, ‘ধানমন্ডির মধুবাজার এলাকায় মাকে বাঁচানোর আকুতি জানিয়ে ফেসবুক লাইভে আসা কিশোরীর ভিডিওটি আমরা সোমবার সকাল ১০টায় দেখি। এরপর পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। কিন্তু পুলিশকে তারা সহযোগিতা করছিল না। তবে সেদিন সন্ধ্যায় একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা আবার ওই বাসায় যান। পরে ওই কিশোরী এবং তার মায়ের সঙ্গে পুলিশের কথা হয়েছে। তাঁরা পুলিশের কাছে একটা লিখিত অভিযোগ দেন।’
হাক্কানি খসরুর বিরুদ্ধে মামলা করেন সাহেদা বেগম। খসরুর বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা আছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের এক কর্মকর্তা।

হাজারীবাগ থানার পুলিশের সঙ্গে কথা বলে জানা গেল, খসরুর সঙ্গে সাহেদার বিবাহবিচ্ছেদ হয়েছে দুই বছর আগে। এই দম্পতির দুই মেয়ে আছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন