default-image

চলছে বইমেলা। বইমেলায় গেলে বিভিন্ন পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে বিখ্যাত কিছু রচনার নাম আপনার মনে পড়ে যেতে পারে। উদাহরণসহ ব্যাখ্যা করা হলো।

ঘরে–বাইরে
বইমেলা এখন দুই স্থানে বিভক্ত। একটি স্থান বাংলা একাডেমির ভেতরে, আরেকটি বাইরে, সোহ্রাওয়ার্দী উদ্যানে। এই দৃশ্য দেখলেই আপনার মনে পড়ে যাবে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সেই বিখ্যাত রচনার নাম

যাঁদের দেখেছি
মেলায় গিয়ে এমন অনেকের সঙ্গে দেখা হয়ে যায়, যাদের সঙ্গে হয়তো এমনিতে দেখা হয় না। আবার অনেক সময় তারকাদের সঙ্গেও দেখা হয়ে যায়। দেখা–সাক্ষাতের পর আপনার মনে পড়ে যেতে পারে জসীমউদ্দীনের বিখ্যাত সেই রচনার নাম

ধূসর পাণ্ডুলিপি
অনেক লেখকই পাণ্ডুলিপি নিয়ে সোজা বইমেলায় চলে যান। যাতে প্রকাশককে হাতেনাতে ধরা যায়। কিন্তু তাঁদের ওই পাণ্ডুলিপি যখন বইমেলার ধুলাবালুতে ভরে যায়, তখন মনে হতে পারে জীবনানন্দ দাশের সেই বিখ্যাত রচনার নাম

বিষের বাঁশি
রাত নয়টার দিকে যখন মেলার গেট বন্ধ করার সময় হয়, তখনো অনেকে বের হতে চান না। তাঁদের বের করার জন্য বাধ্য হয়েই পুলিশ বাঁশি বাজায়। ওই বাঁশি শুনে আপনার মনে পড়ে যেতে পারে কাজী নজরুল ইসলামের সেই বিখ্যাত রচনার নাম

ছায়ানট
নতুন যে জায়গাটিতে মেলার বর্ধিত অংশ নেওয়া হয়েছে, সেখানে তেমন গাছ নেই। তাই ছায়াও নেই। দুপুরের রোদে সেখানে গেলে মনে পড়বে কাজী নজরুল ইসলামের সেই বিখ্যাত রচনার নাম

চোখের বালি
বইমেলা মানেই প্রচুর ধুলাবালু। সেই ধুলাবালু যখন আপনার চোখে অনবরত ঢুকতে থাকবে, তখন আপনার মনে পড়ে যাবে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সেই বিখ্যাত রচনার নাম

চতুষ্কোণ
বইমেলায় অনেক প্রকাশনা সংস্থাকে চার কোনাবিশিষ্ট প্যাভিলিয়ন দেওয়া হয়েছে। সেগুলো দেখলেই আপনার মনে পড়ে যাবে মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সেই বিখ্যাত রচনার নাম

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন