বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গত মঙ্গলবার রাতে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগে মুখ থেকে অক্সিজেন মাস্ক খুলে নেওয়ার পর বিকাশ চন্দ্র কর্মকার নামের এক রোগী মারা যায় বলে তার স্বজনদের অভিযোগ।

বিকাশের বাবা বিশু কর্মকার জানান, তাঁরা গরিব মানুষ। সামান্য কিছু টাকা নিয়ে ছেলের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে যান। আসাদুজ্জামান ট্রলি ঠেলে ২০০ টাকা বকশিশ দাবি করলে তিনি ১৫০ টাকা দেন। দাবি করা পুরো টাকা না পেয়ে তিনি অক্সিজেন মাস্ক খুলে ফেলেন। সঙ্গে সঙ্গে তাঁর ছেলের মুখে ফেনা উঠে যায়। একটু পরেই সে মারা যায়।

বিশু কর্মকার মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, তিনি থানায় মামলা করবেন না। কারণ, মামলা চালানোর সামর্থ্য তাঁর নেই। অভিযুক্ত আসাদুজ্জামান শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের খণ্ডকালীন কর্মচারী বলে জানা যায়। ঘটনার পর থেকে তিনি পলাতক ছিলেন।

হাসপাতালের উপপরিচালক আবদুল ওয়াদুদ প্রথম আলোকে জানান, এ ঘটনায় চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বিকাশের পরিবারের ভাষ্য, তাদের বাড়ি গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার পুঁটিমারি গ্রামে। উপজেলার একটি বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণিতে পড়াশোনা করত বিকাশ। অভাবের সংসারে সে লেখাপড়ার পাশাপাশি একটি ওয়ার্কশপে কাজ করত। ওয়ার্কশপ থেকে বাড়ি ফেরার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় সে আহত হয়। তাকে প্রথমে সাঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নেওয়া হয়েছিল। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিকাশকে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছিল।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন