বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সরকার ন্যায়ভিত্তিক রাষ্ট্র গঠনে কাজ করছে উল্লেখ করে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, ‘আমরা পরিশ্রম করব। উন্নতি করব। তবে রুজি হতে হবে ন্যায়সঙ্গতভাবে। ডাকাতি, ব্যাংক লুট হক রুজি নয়। এগুলো অন্যায়। ন্যায়সঙ্গত রুজিতে সরকার পৃষ্ঠপোষকতা ও সহায়তা করবে।’

পরিকল্পনামন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমরা একসময় পরাধীন ছিলাম। আমাদের কোনো সম্মান, মর্যাদা ছিল না। বাঙালির মহানায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আমরা মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে স্বাধীনতা অর্জন করেছি। ১৯৭১ সালে আমরা দরিদ্র একটা দেশ হিসেবে জন্ম লাভ করেছি। কিন্তু এখন সেই অবস্থা নেই। শেখ হাসিনার নেতৃত্ব বাংলাদেশ এখন উন্নত দেশের দ্বারপ্রাান্তে। তিনি শক্তিশালী, দক্ষ, ইমানদার নেতা। বঙ্গবন্ধুর মতো তাঁকেও সমর্থন দিতে হবে।’

অনুষ্ঠানে প্রতিবন্ধী স্কুলের ভবন নির্মাণ করে দেওয়ার জন্য নূরুল হক এবং তাঁর পরিবারের সবাইকে ধন্যবাদ জানান পরিকল্পনামন্ত্রী। বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য সরকারের নানা ধরনের উদ্যোগ নেওয়ার কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘এসব শিশু এবং তাদের পরিবারের পাশে আমরা আছি, সরকার আছে। যে পরিবারে এ রকম শিশু আছে, আমার সেই পরিবারের কষ্ট বুঝি। এসব শিশুদের মায়েরা তাদের সন্তানদের নিয়ে সীমাহীন কষ্ট করেন। আমরা তাদের কষ্ট কমাতে কাজ করব।’

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন। এতে সুনামগঞ্জ-১ আসনের সাংসদ মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি নূরুল হুদা মুকুট, সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও তথ্যপ্রযুক্তি) তামিম আল ইয়ামিন, সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জয়নাল আবেদীন, সুনামগঞ্জ পৌর ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মো. শেরগুল আহমেদ, নূরুল হক ভবন নির্মাণে আর্থিক সহায়তাকারী ব্যবসায়ী মো. জিয়াউল হক প্রমুখ বক্তব্য দেন।

জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, জেলা প্রশাসন ২০১৬ সালে সুনামগঞ্জ অটিস্টিক ও বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী স্কুল প্রতিষ্ঠা করে। এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের জন্য সরকারি জমিতে নতুন এই ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। চার কক্ষের একতলা এই ভবনের নির্মাণকাজ শুরু হয় ২০১৮ সালে। এই ভবন নির্মাণের সুনামগঞ্জের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী জিয়াউল হক ১ কোটি ১৫ লাখ টাকা দিয়েছেন। ভবনটির নামকরণ করা হয়েছে জিয়াউল হকের বাবা মো. নূরুল হকের নামে। বর্তমানে এই বিদ্যালয়ে ৯০ শিক্ষার্থী আছে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন