default-image

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের হত্যাকাণ্ড নিয়ে শ্বেতপত্র প্রকাশের জন্য একটি জাতীয় কমিশন গঠনের সুপারিশ করেছে আইন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি। ১৫ আগস্টের সে নির্মম হত্যাকাণ্ডের নেপথ্যে কারা কারা জড়িত ছিলেন, তা বের করে তাঁদেরও আইনের আওতায় আনার লক্ষ্যে এই কমিশন গঠনের সুপারিশ করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আজ সোমবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সংসদীয় কমিটির সভায় এই সুপারিশ করা হয়। বৈঠক শেষে সংসদ সচিবালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই সুপারিশের কথা জানানো হয়।


১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে তাঁর ধানমন্ডির বাসভবনে নির্মমভাবে হত্যা করে বিপথগামী একদল সেনা সদস্য। বঙ্গবন্ধুর পরিবারের ১৭জন সদস্যকে সে রাতে হত্যা করা হয়। তাঁর দুই মেয়ে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা দেশের বাইরে থাকায় সে রাতে বেঁচে যান।

বিজ্ঞাপন

বৈঠক সূত্র জানায়, আজকের বৈঠকে এই হত্যাকাণ্ড নিয়ে একটি কমিশন গঠনের বিষয়ে আলোচনা হয়। অনেক দিন থেকেই বিভিন্ন পক্ষ এ ধরনের একটি কমিশন গঠন করার দাবি জানিয়ে আসছে। বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার হলেও এই হত্যাকাণ্ডের পেছনে যারা ছিল তারা ধরাা ছোঁয়ার বাইরে রয়ে গেছেন। বৈঠকে বলা হয়, একটি জাতীয় কমিশন গঠন করা হলে, কমিশন ওই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা পরিপূর্ণভাবে তদন্ত করতে পারবে। এর পেছনে কারা কারা জড়িত ছিল তা বের হয়ে আসবে। সেটা শ্বেতপত্র আকারে প্রকাশ করা যাবে। তাদের মধ্যে কেউ জীবিত থাকলে তাদের বিচারের আওতায় আনা যাবে।

বিজ্ঞাপন

কমিটির সভাপতি আবদুল মতিন খসরুর সভাপতিত্বে বৈঠক কমিটির সদস্য আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, মোস্তাফিজুর রহমান, মো. শামসুল হক, শহীদুজ্জামান সরকার, শামীম হায়দার পাটোয়ারী এবং গ্লোরিয়া ঝর্ণা সরকার বৈঠকে অংশ নেন।

মন্তব্য পড়ুন 0