উন্নত যন্ত্রপাতি ব্যবহারের মাধ্যমে দেশে প্রতিবছর ধান চাষে ১১ হাজার কোটি টাকা সাশ্রয় করা সম্ভব। গত শনিবার খামার যন্ত্রপাতি, ফলনোত্তর প্রযুক্তি বিভাগের কৃষি যন্ত্রপাতি উদ্ভাবন ও সম্প্রসারণ (এফএমটিডি) প্রকল্পের কর্মশালায় কৃষিবিজ্ঞানীরা ওই তথ্য জানান।
গাজীপুরের ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট (ব্রি) মিলনায়তনে আয়োজিত ওই কর্মশালায় বলা হয়, বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের (ব্রি) একটি প্রকল্পের উদ্যোগে ৬০ শতাংশ ভর্তুকিতে বিক্রি করা কৃষি যন্ত্রপাতি ব্যবহারের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট এলাকার কৃষকেরা ব্যাপকভাবে লাভবান হচ্ছেন। ১২টি জেলার কৃষক পর্যায়ে ইতিবাচক সাড়া জাগিয়েছে এই কার্যক্রম।
এফএমটিডি প্রকল্পের উদ্যোগে পরিচালিত সাম্প্রতিক সমীক্ষা থেকে জানা যায়, এই প্রকল্পের মাধ্যমে গত পাঁচ বছরে ৬০ শতাংশ ভর্তুকিতে বিভিন্ন ধরনের ৫ হাজার ৩৮০টি কৃষিযন্ত্র বিক্রি করা হয়েছে। এই প্রকল্পের আওতায় স্থানীয় যন্ত্রপাতি প্রস্তুতকারকদের কারিগরি সহায়তা দেওয়ার মাধ্যমে দেশের ১২টি জেলার ২৪টি উপজেলায় এ কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে।
গত পাঁচ বছরে প্রকল্পের গবেষণা ও সম্প্রসারণ কাজের ফলাফল সম্পর্কে কর্মশালায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ব্রির খামার যন্ত্রপাতি ও ফলনোত্তর প্রযুক্তি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান এবং প্রকল্পের উপপ্রকল্প পরিচালক মুহাম্মদ আব্দুর রহমান ও প্রকল্প সমন্বয়কারী কামরুজ্জামান মিলন। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব শ্যামল কান্তি ঘোষ। ব্রির মহাপরিচালক জীবন কৃষ্ণ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে ওই কর্মশালায় বিশেষ অতিথি ছিলেন কৃষি, পানিসম্পদ ও পল্লি প্রতিষ্ঠান বিভাগের প্রধান সরদার ইলিয়াস হোসেন এবং কৃষি মন্ত্রণালয়ের পরিকল্পনা অণুবিভাগের যুগ্ম প্রধান মনজুরুল আনোয়ার। বক্তব্য দেন ব্রির পরিচালক (প্রশাসন) শাহজাহান কবীর ও পরিচালক (গবেষণা) আনছার আলী।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন