স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের এক আদেশে ঢাকার সাভার পৌরসভার উপসহকারী প্রকৌশলী (সিভিল) তৌফিক ইমামকে ২০১৬ সালে বদলি করা হয়েছিল চাঁদপুরের মতলব পৌরসভায়। ওই আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে সাভার পৌরসভা থেকে ছাড়পত্র নিলেও তিনি মতলব পৌরসভায় যোগদান করেননি। অথচ তিন বছর পর সম্প্রতি মন্ত্রণালয়ের অপর এক আদেশে মতলব পৌরসভায় কর্মরত দেখিয়ে তাঁকে সাভার পৌরসভায় বদলি করা হয়েছে।

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়, সাভার ও মতলব পৌরসভা সূত্রে জানা গেছে, ২০১৬ সালের ২৬ আগস্ট স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপসচিব আবদুর রউফ মিয়া স্বাক্ষরিত এক আদেশে উপসহকারী প্রকৌশলী (সিভিল) তৌফিক ইমামকে সাভার পৌরসভা থেকে মতলব পৌরসভায় এবং মতলব পৌরসভার উপসহকারী প্রকৌশলী (সিভিল) নাজমুল জিসানকে সাভার পৌরসভায় বদলি করা হয়। মন্ত্রণালয়ের আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে নাজমুল জিসান ২০১৬ সালের ১৪ নভেম্বর সাভারে যোগদান করেন। তৌফিক ইমাম ২০১৬ সালের ১৬ নভেম্বর মতলবে যোগদানের উদ্দেশ্যে সাভার পৌরসভা থেকে ছাড়পত্র নিলেও মতলব পৌরসভায় যোগদান করা থেকে বিরত থাকেন। এরপর থেকে তিনি প্রায় তিন বছর নিরুদ্দেশ ছিলেন। তাঁর অবস্থান সম্পর্কে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় বা মতলব পৌরসভার কাছে কোনো তথ্য ছিল না। এ অবস্থায় গত ৮ আগস্ট উপসচিব আবদুর রউফ মিয়া অপর এক আদেশে উপসহকারী প্রকৌশলী তৌফিক ইমামকে মতলব পৌরসভায় কর্মরত দেখিয়ে তাঁকে সাভার পৌরসভায় বদলি করেন। 

মতলব পৌরসভার মেয়র আউলাদ হোসেন বলেন, তাঁদের পৌরসভায় কর্মরত উপসহকারী প্রকৌশলীর নাম মোহাম্মদ রাকিব উদ্দিন। তৌফিক ইমাম নামে মতলব পৌরসভায় কোনো উপসহকারী প্রকৌশলী ছিলেন না, এখনো নেই। 

এ বিষয়ে কথা বলার জন্য তৌফিক ইমামের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগের চেষ্টা করে সম্ভব হয়নি। তাঁর মুঠোফোনে গত ২০ দিন ধরে কল করা হয়। তবে তিনি ফোন না ধরায় কথা বলা যায়নি। ফোন না ধরায় ২১ আগস্ট ও ৯ সেপ্টেম্বর তিন দফায় তাঁর মুঠোফোন খুদে বার্তা পাঠালেও সাড়া পাওয়া যায়নি। তবে সাভার পৌরসভার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শরফ উদ্দিন আহমদ চৌধুরী বলেন, সাভার পৌরসভায় যোগদান করতে এসে তিন বছর নিরুদ্দেশ থাকার বিষয়ে তৌফিক ইমাম তাঁকে জানিয়েছিলেন। সাভার পৌরসভা থেকে ছাড়পত্র নিয়ে মতলব পৌরসভায় যোগদান করতে গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু মতলব পৌর কর্তৃপক্ষ তাঁর যোগদানপত্র গ্রহণ না করায় তিনি যোগদান করতে পারেননি। এরপর থেকে তিনি কোথাও কর্মরত ছিলেন না এবং কোনো বেতন-ভাতা গ্রহণ করেননি বলেও জানান।

জানতে চাইলে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপসচিব সদ্য সাবেক আবদুর রউফ মিয়া বলেন, নথিপত্র অনুযায়ী তৌফিক ইমামের মতলব পৌরসভায় কর্মরত থাকার কথা। কিন্তু তাঁর যোগদান না করার বিষয়টি মতলব পৌরসভা বা সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার পক্ষ থেকে মন্ত্রণালয়কে অবহিত না করায় মন্ত্রণালয়ের তা জানা ছিল না। এ কারণে তৌফিক ইমামকে মতলব পৌরসভায় কর্মরত দেখিয়ে সাভারে বদলি করা হয়।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন