বনলতা এক্সপ্রেস উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

বিজ্ঞাপন
default-image

রাজশাহী-ঢাকা-রাজশাহী রেলপথে বিরতিহীন আন্তনগর ট্রেন ‘বনলতা এক্সপ্রেস’ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় প্রধানমন্ত্রী সবুজ পতাকা উড়িয়ে এবং বাঁশি বাজিয়ে ঢাকা থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ট্রেনটি চলাচলের জন্য উদ্বোধন করেন।

রাজশাহী প্রান্তে ছিলেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন ও রাজশাহী সিটি মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘অল্প খরচে আরামদায়কভাবে ঢাকার সঙ্গে যোগাযোগের জন্য রেলের নেটওয়ার্ক উন্নত করার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে তাঁর সরকার। সামনে ঈদ ও আমের কথা মাথায় রেখে এই ট্রেন উদ্বোধন করছি।’ ট্রেনটি এরপর ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যায়। আগামী শনিবার থেকে ট্রেনের নিয়মিত বাণিজ্যিক চলাচল শুরু হবে।

এত দিন ঢাকা-রাজশাহী রেলপথে তিনটি আন্তনগর ট্রেন চলাচল করত। এবার যোগ হচ্ছে বিরতিহীন ট্রেন। ট্রেন নম্বর ৭৯১-৭৯২। বনলতা ট্রেনটির ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫০ টাকার খাবারসহ এসি শ্রেণির ৮৭৫ টাকা এবং শোভন শ্রেণির জন্য ৫২৫ টাকা।

২৭ এপ্রিল থেকে বনলতা ট্রেনের বাণিজ্যিক যাত্রা শুরু হবে। তবে টিকিট বিক্রি আজ থেকেই শুরু। শনি থেকে বৃহস্পতিবার প্রতিদিন বেলা ১টা ১৫ মিনিটে ট্রেনটি ঢাকার কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে ছেড়ে সন্ধ্যা ৬টায় রাজশাহী পৌঁছাবে। আর রাজশাহী থেকে সকাল ৭টায় ছেড়ে ঢাকায় পৌঁছাবে বেলা ১১টা ৪০ মিনিটে। ট্রেনটির সাপ্তাহিক চলাচল বন্ধ থাকবে শুক্রবার।

বনলতায় থাকছে ইন্দোনেশিয়া থেকে আমদানি করা ১২টি নতুন বগি। এর মধ্যে শোভন চেয়ারের বগি ৭টি। যার আসনসংখ্যা ৬৬৪। ২টি এসি বগির আসনসংখ্যা ১৬০। ১৬ আসন নিয়ে একটি পাওয়ার কার ও ১০৮টি আসন নিয়ে দুটি গার্ডব্রেক থাকছে। সব মিলিয়ে ‘বনলতা’র আসনসংখ্যা ৯৪৮। এ ছাড়া খাবারের জন্য থাকবে একটি খাওয়ার বগি।

ওয়াগন বিভাগ সূত্র জানায়, ট্রেনটিতে সংযুক্ত রয়েছে উড়োজাহাজের মতো বায়োটয়লেট। এ কারণে মলমূত্র আর রেললাইনের ওপরে পড়বে না। ট্রেনটিতে থাকছে রিক্লেনার চেয়ার। আছে ওয়াই–ফাই সুবিধা। প্রতিটি বগিতে রয়েছে এলইডি ডিসপ্লে। যার মাধ্যমে স্টেশন ও ভ্রমণের তথ্য প্রদর্শন করা হবে। কিন্তু থাকছে না শীতাতপনিয়ন্ত্রিত কোনো ধরনের স্লিপিং বার্থ। রেল বিভাগের ভাষ্য, ট্রেনটি দিনের বেলা চলাচল করবে সে কারণে শীতাতপনিয়ন্ত্রিত বার্থের দরকার আপাতত পড়ছে না।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন