default-image

দক্ষিণ চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার ছনখোলা, চুড়ামনি ও বাঁশখালীর লটমনি এলাকায় বনের পাশে গড়ে উঠেছে ১০টি ইটভাটা। এসব ইটভাটার একটিরও পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র নেই।
সরেজমিনে এওচিয়া ইউনিয়নের ছনখোলা এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, সংরক্ষিত বনের পাশঘেঁষে গড়ে ওঠা এমবিএফ, এনবিএম, বাদশা ও এসএমবি নামের চারটি ইটভাটা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। এসব ভাটায় অবাধে পোড়ানো হচ্ছে বনের কাঠ। পাশের পাহাড়ের মাটি ব্যবহার করে তৈরি করা হচ্ছে ইট। একই অবস্থা ওই এলাকার ইউএমবি, এমবিএম ও এলবিএম নামের আরও তিনটি ইটভাটার। সাতকানিয়া-বাঁশখালী সড়কের চুড়ামনির এসএসএমবি এবং লটমনি এলাকার জেবিস ও এএসসি নামের ইটভাটায় বনের কাঠ পোড়াতে দেখা গেছে। এসব ইটভাটার অবস্থানও সংরক্ষিত বনের এক কিলোমিটারের মধ্যে।
পরিবেশ আইন অনুযায়ী, সংরক্ষিত বনের তিন কিলোমিটারের মধ্যে ইটভাটা স্থাপন িনষিদ্ধ। বনের পাশের প্রতিটি ইটভাটাই আধা থেকে এক কিলোমিটারের মধ্যে।
জানতে চাইলে ছনখোলা এনবিএম ইটভাটার মালিক আবু নাছের ও এসএমবি ইটভাটার মালিক নিজাম উদ্দিন তাঁদের মালিকানাধীন ইটভাটায় পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র নেই স্বীকার করে প্রথম আলোকে বলেন, ‘বসতির পাশে, ফসলি জমিতে বা বনের পাশে ইটভাটা স্থাপন করতে না পারলে আমরা কোথায় গিয়ে ব্যবসা করব। তা ছাড়া আমরা সরকারি কোনো জায়গায় ইটভাটা স্থাপন করিনি। ব্যক্তিমালিকানাধীন জায়গাতেই ইটভাটা স্থাপন করেছি।’
বনের আশপাশের বাসিন্দাদের অভিযোগ, পরিবেশ অধিদপ্তর অন্য এলাকার ইটভাটায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করলেও বনের পাশের এসব ইটভাটায় এখনো কোনো অভিযান পরিচালনা করেনি।
পরিবেশ অধিদপ্তরের বিভাগীয় কার্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক মো. শহীদুল আলম বলেন, বনের পাশের ইটভাটাগুলোর অবস্থান চিহ্নিত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এই ভাটাগুলোর একটিরও ছাড়পত্র নেই।
উপজেলা পরিষদ কার্যালয় সূত্র জানায়, সাতকানিয়া উপজেলায় মোট ইটভাটা আছে ৫৭টি। এর মধ্যে অনুমোদন আছে মাত্র ছয়টির। বেশির ভাগ ইটভাটা চলছে উচ্চ আদালতে রিট করে।
উপজেলার মাদার্শা রেঞ্জের বন কর্মকর্তা মো. ফিরোজ আলী বলেন, ‘ইটভাটার লাইসেন্স দেয় জেলা প্রশাসকের কার্যালয়। ছাড়পত্র দেয় পরিবেশ অধিদপ্তর। আমরা ভাটাগুলোতে বনের কাঠ পোড়ানো হয় কি না তা দেখে উপজেলা প্রশাসনকে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনায় সহযোগিতা করি। এসব ইটভাটা বনের কাঠ পোড়ানো হয় কি না তা তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’
এ প্রসঙ্গে সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ উল্লাহ বলেন, শিগগিরই বনের পাশের ইটভাটাগুলোতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন