বরিশাল-৫ সদর আসনে গতকাল রোববার উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী জেবুন্নেছা আফরোজ বেসরকারি ফলাফলে নির্বাচিত হয়েছেন৷ তিনি পেয়েছেন এক লাখ ৮৩ হাজার ৬২৯ ভোট৷ তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনএফ প্রার্থী সাইফুল ইসলাম পেয়েছেন মাত্র ছয় হাজার ১৩৬ ভোট৷ জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. শহীদুল আলম গতকাল রাত আটটার দিকে তাঁর কার্যালয়ের ফলাফল ঘোষণা করেন৷
এ নির্বাচনে ব্যাপক জাল ভোট দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে৷ প্রতিদ্বন্দ্বী একমাত্র প্রার্থী সাইফুলের দাবি বড়জোর ১০ শতাংশ ভোট পড়েছে৷ বাদবাকি ভোট দিয়েছেন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের কর্মী-সমর্থকেরা৷
ফলাফল ঘোষণার পর জানতে চাইলে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. দুলাল তালুকদার মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, ৫৫ দশমিক ৮১ শতাংশ ভোট পড়েছে৷ অবাধ ও সুষ্ঠু ভোট হয়েছে৷ কোথাও কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেনি৷
গতকাল বিভিন্ন ভোটকেন্দ্রে দেখা গেছে, ভোটারের উপস্থিতি প্রায় নেই৷ ২০-২৫টি কেন্দ্র ঘুরে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী সাইফুলের কোনো প্রতিনিধির (এজেন্ট) দেখা মেলেনি৷ এর পরও এসব ভোটকেন্দ্রের অধিকাংশ বাক্সই ছিল ভর্তি৷ কোনো কোনো কেন্দ্রে এ সময়ের মধ্যে ৬০ শতাংশ ভোট পড়ে৷
সদর উপজেলার দক্ষিণ জাগুয়া রেজি. প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোটার মো. রুহুল আমীন বলেন, সকাল ১০টার দিকে মাঠে প্রায় ১০০ ভোটারের উপস্থিতি ছিল। এরপর আর ভোটার দেখা যায়নি৷
প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী সাইফুল ইসলাম গতকাল রাত সাড়ে আটটার দিকে মুঠোফোনে বলেন, আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের কর্মী-সমর্থকেরা তাঁদের প্রার্থীর পক্ষে ব্যাপক ভোট জালিয়াতি করেছেন৷

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0