বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জাতিসংঘের মহাসচিবের দপ্তর থেকে আবিরকে চিঠি পাঠানোর জন্য ধন্যবাদ জানানো হয়। জাতিসংঘের চিঠিতে বলা হয়, তারা আরিয়ানের চিঠি পড়েছে। গুরুত্বপূর্ণ এই বিষয়ে আগ্রহের জন্য তার প্রশংসা করেছে জাতিসংঘ।

আন্তোনিও গুতেরেসকে লেখা চিঠিতে আবির উল্লেখ করে, ‘আপনিই একমাত্র ব্যক্তি, যিনি আমি ও আমাদেরকে সবুজ ভবিষ্যৎ উপহার দিতে পারেন। কিন্তু আপনি ক্রমাগত ব্যর্থ হয়েছেন।’

চিঠিতে আবির আরও লেখে, ‘আপনি কি চাননা, আমেরিকা, রাশিয়া, ভারতসহ কার্বন নিঃসরণকারী দেশগুলোকে ভয় পান? যদি তা না হয়, তাহলে গত ১০ বছরে একটুও কেন উন্নতি হয়নি। কারণ, জাতিসংঘ যথাযথ ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ হয়েছে।’

জাতিসংঘ মহাসচিবকে লেখা চিঠিতে বলা হয়, ‘বিশ্ব জলবায়ু তহবিল সংস্থায় ১৭০ ট্রিলিয়ন ডলার পড়ে আছে। সর্বোচ্চ কার্বন নিঃসরণকারী দেশের কোম্পানিগুলোকে একেবারে বন্ধ করে দিতে হবে। এসব কোম্পানি বন্ধ করার ফলে দেশগুলোতে চলমান জাতীয় অর্থনীতিতে যে সমস্যা দেখা দেবে, আমরা তা ওই ১৭০ ট্রিলিয়ন ডলার দিয়ে সমাধানের চেষ্টা করব।’

চলতি বছরে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এসএসসি উত্তীর্ণ আরিয়ানকে ছোটবেলা থেকে জলবায়ু পরিবর্তনের বিষয়টি ভাবাত। এ জন্য ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ার সময় ‘আরিয়ান ক্লাইমেট ফান্ড’ নামের তহবিল গঠন করে। চিকিৎসক খান জাহান আলী ও গৃহিণী কাজী আফসানার ছেলে আরিয়ান ভবিষ্যতেও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেছে প্রথম আলোর কাছে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন