default-image

ঢাকায় যুক্তরাজ্যের হাইকমিশনার রবার্ট ডিকসন বলেছেন, সাম্প্রতিক সময়গুলোতে বাংলাদেশ ধারাবাহিকভাবে উন্নতি করে যাচ্ছে। বাংলাদেশের সম্ভাবনার পূর্ণ বিকাশের স্বার্থে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিশ্চিত করা জরুরি।

গতকাল বুধবার দুপুরে প্রথম আলো কার্যালয়ে এসে যুক্তরাজ্যের হাইকমিশনার এই মন্তব্য করেন। নিয়মিত গণমাধ্যমের কার্যালয় পরিদর্শনের অংশ হিসেবে তিনি এদিন প্রথম আলোতে আসেন। এ সময় তাঁকে স্বাগত জানান প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমান।   

দুই দেশের সম্পর্কের বিভিন্ন বিষয়ের পাশাপাশি বাংলাদেশের মতপ্রকাশের স্বাধীনতা নিয়ে কথা বলেন ঢাকায় যুক্তরাজ্যের শীর্ষ এই কূটনীতিক। এ প্রসঙ্গে এই বছরের জুলাই মাসে লন্ডনে অনুষ্ঠিত গণমাধ্যমের স্বাধীনতা বিষয়ে বৈশ্বিক সম্মেলনের কথা উল্লেখ করেন তিনি। যুক্তরাজ্য ও কানাডার যৌথ আয়োজনে ওই সম্মেলনে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিশ্চিতের লক্ষ্যে বিশ্বজুড়ে প্রয়াস অব্যাহত রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় ঢাকায় যুক্তরাজ্য হাইকমিশন বিভিন্ন সময় গণমাধ্যমের সঙ্গে মতবিনিময় করছে।

গতকাল আলোচনার একপর্যায়ে প্রথম আলো সম্পাদক বলেন, নানা প্রতিকূলতা সত্ত্বেও বাংলাদেশ এগিয়ে চলেছে এবং এগিয়ে যাবে। এ দেশের সম্ভাবনা বিপুল। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে ২১ বছর ধরে দেশে ও দেশের বাইরে বাংলাদেশের সাফল্য আর সম্ভাবনাকে তুলে ধরছে প্রথম আলো। এবার ২১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে প্রথম আলো সংবিধানের পাঁচটি মৌলিক চাহিদা—অন্ন, বস্ত্র, আশ্রয়, চিকিৎসা আর শিক্ষা নিয়ে বিশেষ সংখ্যা প্রকাশ করেছে। বিশেষ সংখ্যাগুলোতে মৌলিক পাঁচটি বিষয়ে বাংলাদেশের অর্জন, সম্ভাবনা ও চ্যালেঞ্জ নিয়ে লিখেছেন বিশিষ্টজনেরা। 

বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি আর উন্নয়নের ধারাবাহিকতার কথা উল্লেখ করে রবার্ট ডিকসন বলেন, বাংলাদেশের অপার সম্ভাবনা রয়েছে। এই সম্ভাবনার পূর্ণ সদ্ব্যবহারের জন্য গণমাধ্যম ও মতপ্রকাশের স্বাধীনতার পাশাপাশি কার্যকর গণতন্ত্রের গুরুত্ব অপরিসীম।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0