default-image

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী, সরকার ও পুলিশের ওপর হামলা চালাতে উসকানি দেওয়ায় যুক্তরাজ্যে এক ব্যক্তিকে তিন বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। ওই ব্যক্তির নাম মুন্না হামজা (৫০)। গত শুক্রবার লন্ডনের উলউইচ ক্রাউন কোর্ট এ দণ্ডাদেশ দেন।

লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশের ওয়েবসাইটে গত সোমবার এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এতে আরও জানানো হয়, মুন্না হামজার কারাদণ্ডের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর তাঁকে আরও এক বছর নজরদারির আওতায় থাকতে হবে বলে আদালত নির্দেশ দিয়েছেন। মুন্না হামজা সাউথ লন্ডনের বাসিন্দা।

পুলিশের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মুন্না হামজা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ২০১৫ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত পাঁচটি পোস্টে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী, সরকার ও পুলিশের ওপর হামলা চালাতে উসকানি দিয়েছেন। এর মধ্যে ২০১৫ সালের ১ সেপ্টেম্বর থেকে ওই বছরের ডিসেম্বর পর্যন্ত তিনটি পোস্ট করেন তিনি। এ ছাড়া ২০১৮ সালের ৩ মে এবং ১৬ মে তিনি আরও দুটি পোস্ট করেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে স্থানীয় এক ব্যক্তি ২০১৮ সালের ১৭ মে ওই পোস্টগুলোর ব্যাপারে পুলিশকে জানান। এরপর তদন্ত শেষে ওই বছরের ৪ জুলাই মুন্না হামজাকে সাউথ লন্ডনে তাঁর কর্মস্থল থেকে গ্রেপ্তার করে লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউন্টার টেররিজম কমান্ড। এ সময় তাঁর কম্পিউটার, মুঠোফোন ও পেনড্রাইভ জব্দ করা হয়।

বিজ্ঞাপন

পরে জিজ্ঞাসাবাদে মুন্না হামজা তাঁর পোস্টগুলোর কথা স্বীকার করেন। এরপর তিনি জামিনে মুক্তি পান। তদন্ত শেষে ২০১৯ সালের ২৮ জানুয়ারি মুন্না হামজার বিরুদ্ধে যুক্তরাজ্যের সন্ত্রাসবাদ প্রতিরোধ আইন ২০০৬–এর অধীনে অভিযোগ গঠন করা হয়।

পুলিশের বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, উলউইচ ক্রাউন কোর্ট গত ১৩ জানুয়ারি মুন্না হামজাকে সন্ত্রাসবাদে উসকানি দেওয়ার অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করেন। এরপর গত শুক্রবার তাঁর সাজা ঘোষণা করা হয়।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন