default-image

বাংলাদেশের সরকার চরমপন্থীদের সহিংসতার বিষয়টিকে গুরুত্ব দিচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন নিহত লেখক ও ব্লগার অভিজিৎ রায়ের স্ত্রী রাফিদা আহমেদ বন্যা। প্রকাশ্য দিবালোকে হত্যা করার ক্ষেত্রে সরকার চরমপন্থীদের ফ্রি পাস দিচ্ছে বলে বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি অভিযোগ করেছেন।
অভিজিৎকে হত্যার পর আরও দুজন লেখককে হত্যা করা হয়। গত ২৬ ফেব্রুয়ারি রাতে অমর একুশে গ্রন্থমেলা থেকে ফেরার পথে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় কুপিয়ে হত্যা করা হয় অভিজিৎকে। গুরুতর আহত হন সঙ্গে থাকা তাঁর স্ত্রী রাফিদা।
রাফিদা বলেন, চিকিৎসকেরা তাঁকে সে সময়ের ভয়ানক ছবিগুলো দেখতে বারণ করেছেন, যে ছবিগুলোতে তিনি মানুষের কাছে সাহায্য চাইছিলেন। কেউ তাঁকে সাহায্য করতে এগিয়ে আসেনি। তাঁর রক্তক্ষরণ হচ্ছিল। অভিজিৎ তখন অর্ধমৃত। পুলিশও তাঁদের হাসপাতালে যেতে সাহায্য করেনি বলে উল্লেখ করেন বন্যা।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0