পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার কালাইয়া ইউনিয়নের কর্পূরকাঠি গ্রামে পানিতে ডুবে একই পরিবারের তিন শিশুর মৃত্যু হয়েছে। আজ সোমবার দুপুরে নিখোঁজের পর সন্ধ্যায় বাড়ির কিছু দূরে একটি পুকুর থেকে মৃতদেহ তিনটি উদ্ধার হয়। বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোস্তাফিজুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

মৃত তিন শিশু হলো মাহফুজা বেগম (১৫), মরিয়ম বেগম (১৫) ও মারিয়া বেগম (১১)। মাহফুজা ওই গ্রামের আবদুর রাজ্জাক খানের মেয়ে। সে গ্রামের মানছুরিয়া দাখিল মাদ্রাসার দশম শ্রেণির ছাত্রী ছিল। মরিয়ম ও মারিয়া একই গ্রামের মোখলেচুর রহমানের মেয়ে ও কালাইয়া রাব্বানিয়া ফাজিল মাদ্রাসার যথাক্রমে দশম ও ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল। তারা পরস্পরের চাচাতো বোন।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, সোমবার দুপুরে তিন বোন কাউকে না বলে একসঙ্গে গোসল করতে বাড়ির অদূরের একটি পুকুরে যায়। দুপুর গড়িয়ে গেলেও পরিবারের সদস্যরা তাদের খোঁজ না পেয়ে আত্মীয়স্বজনদের বাড়িতে খোঁজ নিতে থাকেন। একপর্যায়ে পরিবারের লোকজন ওই পুকুরে পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় তিন বোনের মরদেহ ভাসমান অবস্থায় দেখতে পান।

ওই পরিবারের স্বজন মাওলানা মো. মহিউদ্দিন জানান, তারা কেউ সাঁতার জানত না। কালাইয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এস এম ফয়সাল আহম্মেদ মনির হোসেন মোল্লা বলেন, তিন বোনের মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0