আহত বাবুল অভিযোগ করে বলেন, স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ী মো. তরিকুল (২৬) ও মো. বশিরের (২৭) নেতৃত্বে ৮-১০ জনের একটি দল তাঁদের ওপর হামলা চালিয়ে পিটিয়ে ও কুপিয়ে গুরুতর জখম করে ফেলে যান।

বাউফল থানা–পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, তরিকুলের বিরুদ্ধে বরিশাল বিভাগের বিভিন্ন থানায় মাদক মামলা রয়েছে। একাধিকবার তরিকুল মাদকসহ গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। সম্প্রতি তিনি কারাগার থেকে জামিনে বের হয়েছেন।

স্থানীয় কয়েকজন বাসিন্দার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সন্ধ্যার দিকে মাদ্রাসা থেকে বের হয়ে রামনগর চৌরাস্তা বাজারের একটি দোকানে বসে চা পান করছিলেন তাঁরা।

সন্ধ্যা পৌনে ছয়টার দিকে তরিকুল ও বশিরের নেতৃত্বে ৮-১০ জনের একটি দল হাসান ও বাবুলের ওপর হামলা চালান। ওই সময় তাঁরা পিটিয়ে ও কুপিয়ে আহত করেন হাসান ও বাবুলকে। একপর্যায়ে স্থানীয় লোকজন তাঁদের উদ্ধার করে একটি ঘরে নিয়ে আশ্রয় দেন। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে তাঁদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসা কর্মকর্তা নূর আহম্মেদ সাঈদ বলেন, দুজনের মধ্যে হাসানের অবস্থা গুরুতর। মাথা, হাত ও পিঠে কোপের দাগ রয়েছে, প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে। তাই তাঁকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

তবে দলীয়ভাবে তরিকুল ছাত্রদলের কর্মী। তাঁর পরিবার বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। এ বিষয়ে জানার জন্য তরিকুল ও বশিরের মুঠোফোনে কল করলে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আল মামুন বলেন, খবর পেয়ে আহত দুই ব্যক্তিকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পাঠিয়েছে পুলিশ। লিখিত অভিযোগ পেলে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন