default-image

সে এক পায়রার মেলা। নানা রঙের, নানা জাতের কবুতর বাকবাকুম করছে। কবুতরগুলো খাঁচার ভেতর সারিবদ্ধভাবে সাজানো। তা নিয়ে চলছে ক্রেতা-বিক্রেতার দরদাম। একদিকে পায়রার বাকুম বাক, আরেক দিকে বিক্রেতাদের হাঁকডাক। এভাবে রাজধানীর কাপ্তান বাজার কমপ্লেক্সের ছাদে বসা কবুতরের হাট সরগরম।

default-image

কবুতর ব্যবসায়ীরা ক্রেতাদের ডাকছেন, ‘ভাই পায়রা লাগবে, পায়রা? চলে আসুন আমার এখানে। আসুন। কী পায়রা লাগবে, সবই আমার এখানে আছে।’ প্রতি শুক্রবার সেখানে বাজার বসে। সকাল থেকে শুরু হওয়া বাজার চলে রাত অবধি।
সরেজমিন দেখা যায়, ছাদের ওপর কবুতর ব্যবসায়ীরা কবুতর নিয়ে বসে আছেন। কবুতর কিনতে আসা লোকজন পছন্দের কবুতর নানাভাবে পরখ করে দেখছেন। অনেক দিন ধরে কবুতরের ব্যবসা করেন নিত্যানন্দ ঠাকুর। প্রথম আলোকে তিনি বলেন, অনেক আগে থেকেই গুলিস্তানে কবুতরের বাজার বসছে। আগে নিচে বসত, এখন বসছে ছাদের ওপরে। সকাল থেকে রাত অবধি চলে।

default-image

আরেক কবুতর ব্যবসায়ী আকবর আহম্মেদ বলেন, সব ধরনের কবুতর এখানে ওঠে। লাখ টাকার কবুতর থেকে ৫০০ টাকার কবুতর এখানে আছে। ঢাকার আশপাশের জেলার লোকজনও এখানে কবুতর কিনতে আসেন। কিং, সিরাজি, পোর্টার জাতের কবুতরের চাহিদা বেশি।
কবুতর বাজারে নিয়মিত আসেন ফয়সাল কোরাইশী। তিনি বলেন, গুলিস্তানের এই কবুতরের বাজারে রেসার, বোখারি, জ্যাকোবিন, আমেরিকান হেলমেট, বিউটি হোমার, র‍্যাং, স্যালো, ট্রেম লাইট, পারভিন, গিরিবাজ, লাক্ষা—এসব জাতের কদর বেশি।

default-image

বাজার ঘুরে দেখা গেল, রেসার কবুতরের দাম অনেক। কবুতর ব্যবসায়ীরা বললেন, জাতভেদে রেসারের দাম পাঁচ লাখ টাকাও হতে পারে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন