যুক্তরাজ্যভিত্তিক জনস্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সাময়িকী ‘ল্যানসেট’-এর সম্পাদকীয়তে বলা হয়েছে, যে দেশ মত প্রকাশের স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে পারে না, সে দেশ অগ্রগতির প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে পারে না। মৌলিক মানবাধিকার হিসেবে মত প্রকাশের স্বাধীনতা ও স্বাস্থ্য অবিচ্ছেদ্যভাবে সম্পর্কিত। মত প্রকাশের স্বাধীনতার কমতি আপনাকে আক্ষরিক অর্থে খুন করতে পারে, যেমন এখন বাংলাদেশের পরিস্থিতি। 

আজ শুক্রবার ‘ল্যানসেট’ এই সম্পাদকীয় ছেপেছে। রাজধানীর কলাবাগানে বাসায় জুলহাজ মান্নান ও তাঁর বন্ধু মাহবুব রাব্বি তনয়কে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে এই সম্পাদকীয় লেখা হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, যা অভিব্যক্তি প্রকাশে বাধাগ্রস্ত করে, তা স্বাস্থ্য ও উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করে।
ল্যানসেট ২০১৩ সালে বাংলাদেশের ওপর একটি বিশেষ সংখ্যা প্রকাশ করেছিল। সেই বিশেষ সংখ্যার উল্লেখ করে সম্পাদকীয়তে বলা হয়েছে, ধর্মনিরপেক্ষতা ও বহুত্ববাদ দেশটির স্বাস্থ্যের উল্লেখযোগ্য উন্নতিতে চালকের ভূমিকা রেখেছিল। এখন এ কথা অস্বীকার করা কঠিন যে কিছু মত এখন প্রান্তিক অবস্থায়, হুমকির মুখে বা একেবারে নিভে যাওয়ার পথে।
ল্যানসেট বলছে, এপ্রিলে পাঁচজন ও ২০১৬ সালে মোট ১০ জন লেখক, অ্যাকটিভিস্ট বা বুদ্ধিজীবীর হত্যার ঘটনা উদ্বেগজনক। এ ক্ষেত্রে চরমপন্থীদের দৃষ্টিতে ইসলামবিরোধী অভিব্যক্তি হচ্ছে সাধারণ নিয়ামক; এটা এমনভাবে প্রসারিত হচ্ছে যে প্রগতিশীল ও উদার দৃষ্টিভঙ্গির যে কেউ এর নিশানায় পড়তে পারে।
সম্পাদকীয়র শেষ দিকে বলা হয়েছে, মনে হচ্ছে দেশটি (বাংলাদেশ) বিপজ্জনকভাবে পেছন দিকে পিছলে যাচ্ছে। এটা মর্মপীড়াদায়ক।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন