default-image

রাজধানীর মহাখালী থেকে সাভারের নবীনগর রুটে চলাচল করে আশুলিয়া ক্ল্যাসিক পরিবহন। অভিযোগ উঠেছে, বাসটির চালকেরা বেপরোয়া হওয়ায় এ রুটে একের পর এক দুর্ঘটনা ঘটছে। এর বাইরেও বাসটিতে নারী ধর্ষণের একাধিক ঘটনা ঘটেছে। উদ্ধার হয়েছে মানুষের লাশও।

সর্বশেষ গত ১১ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় সাভারের নরসিংহপুর এলাকায় এ বাসের ধাক্কায় শারমিন গার্মেন্টসের প্রশাসনিক কর্মকর্তা শামসুল আলম (৪৫) নিহত হন। শনিবার রাতে সাভারের জামতলা এলাকা থেকে বাসের চালক ও সহকারীকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। র‌্যাব বলছে, ঘটনার দিন বাসের চালক ওয়াসিম নেশাগ্রস্ত ছিলেন। তাঁর ড্রাইভিং লাইসেন্সও নেই।

র‌্যাবের একটি সূত্র প্রথম আলোকে বলেছে, ২০১৯ সালে এক তরুণীকে আশুলিয়া ক্ল্যাসিক পরিবহনের একটি বাসে ধর্ষণের চেষ্টা করেন বাসের চালক ও সহকারী। ওই ঘটনায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। পরে এ একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হয়। ওই বছরের ১২ জুলাই আশুলিয়া ক্ল্যাসিক পরিবহনের একটি বাসের ভেতর তরুণীকে গণধর্ষণের অভিযোগ ওঠে। এ ঘটনায় আশুলিয়া থানা-পুলিশ বাসের চালক-সহকারীসহ সাতজনকে গ্রেপ্তার করে।

আশুলিয়া থানা সূত্রে জানা যায়, ২০২০ সালের ৪ জুন এ পরিবহনের একটি বাসের ধাক্কায় একজন মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হন। তার আগে ২০১৭ সালের ২৮ জুলাই এ পরিবহনেরই একটি বাস থেকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় নৃশংসভাবে হত্যাকাণ্ডের শিকার এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছিল।

বিজ্ঞাপন

একের পর এক এমন ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে আশুলিয়া ক্ল্যাসিক পরিবহন মালিক সমিতির চেয়ারম্যান মো. আশরাফ উদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, এ রুটে তাঁদের ৬৫টি বাস চলাচল করে। অধিকাংশ বাসের দেখাশোনা করেন বাসের মালিকেরা। তাঁদের বলে দেওয়া আছে চালকের লাইসেন্স এবং গাড়ির সব কাগজপত্র হালনাগাদ রাখার জন্য। সমিতি থেকে তাঁরা শুধু সড়কের ঝক্কি–ঝামেলার দেখভাল করেন।

আশরাফ উদ্দিন বলেন, এখন পর্যন্ত যত ঘটনা ঘটেছে, সবগুলোতেই দোষী বাসচালক ও তাঁর সহকারীকে গ্রেপ্তারের জন্য তাঁরা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সহায়তা করেছেন। তাঁর দাবি, এসব ঘটনা শুধু তাঁদের পরিবহনেই হচ্ছে না। অন্যান্য পরিবহনেও হচ্ছে।

ঢাকা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ, উত্তর) আবদুল্লাহিল কাফী প্রথম আলোকে বলেন, পরিবহনটির বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট এ অভিযোগগুলো তাঁরা গুরুত্বের সঙ্গে দেখছেন। বাসচালকদের নিয়োগে যেন আরও স্বচ্ছতা আনা হয়, সে ক্ষেত্রে মালিক সমিতির সঙ্গে কথা বলবেন। চালকেরা বেপরোয়া বাস চালাচ্ছে কি না, সেটিও পর্যবেক্ষণে রাখা হবে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন