default-image

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করে বলেছেন, দেশে ডাকাতির রাজত্ব প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। যার সবশেষ নজির অতিরিক্ত দাম দিয়ে করোনার টিকা আমদানি। এই আমদানির মধ্য দিয়ে লুটপাটের আরেক উৎসব চালানোর প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

আজ বুধবার দুপুরের দিকে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত এক প্রতিবাদ সমাবেশে এই অভিযোগ করেন মির্জা ফখরুল।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে এই সমাবেশের আয়োজন করে ঢাকা মহানগর বিএনপি। বেলা সাড়ে ১১টা থেকে ১টা পর্যন্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সেরাম ইনস্টিটিউটের কাছ থেকে ভারত সরকার প্রতি ডোজ করোনার টিকা কিনছে ২০০ রুপি বা ২ দশমিক ৭২ ডলার দরে। বাংলাদেশি মুদ্রায় এটি ২৩১ টাকার মতো। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়, সেরামের টিকা কোভিশিল্ডের প্রতি ডোজ কিনতে বাংলাদেশকে খরচ করতে হচ্ছে ৪ মার্কিন ডলার। বাংলাদেশি টাকায় এর দাম পড়ে প্রায় ৩৪০ টাকা (১ ডলার= ৮৪.৯৬ টাকা)। এই হিসাবে বাংলাদেশকে টিকার প্রতি ডোজ কিনতে ভারতের চেয়ে প্রায় ৪৭ শতাংশ বেশি ব্যয় করতে হচ্ছে। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ও অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি টিকা ভারতে উৎপাদন করছে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট। সেরামের কাছ থেকে তিন কোটি টিকা কিনছে বাংলাদেশ।

বিজ্ঞাপন

বিএনপির মহাসচিব অভিযোগ করে বলেন, ১২ বছর ধরে দেশের গণতন্ত্রকে ধ্বংস করতে পরিকল্পিতভাবে নির্যাতন-অত্যাচার চালানো হচ্ছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, দেশে বর্তমানে কোনো আইনের শাসন নেই। সরকার বিচার বিভাগকে শেষ করে দিয়েছে।

জনগণকে উদ্দেশ করে মির্জা ফখরুল বলেন, গণতন্ত্র রক্ষায় ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিবাদ-লড়াই করার সময় এসেছে।

তারেক রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদ জানান বিএনপির মহাসচিব। তিনি বলেন, তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা তুলে নিতে হবে।

প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি হাবিবুন নবী খান সোহেল।

সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, এ জেড এম জাহিদ হোসেন, শামসুজ্জামান, রুহুল কবীর রিজভী, আমানুল্লাহ আমান প্রমুখ।

মন্তব্য করুন