default-image

‘আলোর পথে প্রীতির সাথে’ স্লোগানে গতকাল বুধবার নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলায় তারুণ্যের জয়গান অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে অংশ নেওয়া তরুণ-তরুণীরা সহিংসতা ও মাদককে ‘না’ বলে শপথবাক্য পাঠ করেন। 

প্রথম আলো বন্ধুসভা, কিশোর আলো ও মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের ‘সম্প্রীতি’ প্রকল্পের আওতায় সরকারি মুড়াপাড়া কলেজে দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠান হয়। বেলা ১১টায় কলেজের মাঠে বেলুন উড়িয়ে উৎসবের উদ্বোধন করা হয়। এরপর জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে কলেজের বীর প্রতীক গাজী মিলনায়তনে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন কলেজের শিক্ষক আবু জাফর মোহাম্মদ ছালেহ, নাট্যকার ও সাংবাদিক আবদুল মোমেন, কিশোর আলোর জ্যেষ্ঠ সহসম্পাদক পাভেল মহিতুল আলম, কলেজের বাংলা বিভাগের শিক্ষক হোসনে আরা বেগম।

অনুষ্ঠানের শুরুতে সাংস্কৃতিক পর্ব শুরু হয় গ্রিন হ্যাভেন ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের শিশুশিক্ষার্থীদের নাচ পরিবেশনের মধ্য দিয়ে। এ ছাড়া ওই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরাও সংগীত পরিবেশ ও কবিতা আবৃত্তি করে। পরে অংশগ্রহণকারী তরুণ-তরুণীদের মধ্যে অনুপ্রেরণাদায়ক বক্তব্য দেন আলোকচিত্রী প্রীত রেজা। তরুণদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আমি অতটা মেধাবী নই, সেটি আমি জানি। কিন্তু কখনো হতাশ হইনি। শুধু পরিশ্রমটা একটু বেশি করতে হয়েছে, হচ্ছে—এই যা।’ তিনি বলেন, ‘বড় বড় স্বপ্ন দেখতে হবে। নিজের দুর্বলতা জেনে নিয়ে সেটা দূর করতে কাজ করতে হবে। না হলে স্বপ্ন স্বপ্নই থেকে যাবে।’

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মহিতুল আলম বলেন, ‘আমরা সম্প্রীতির কথা বলতে এসেছি। আমরা প্রতিদিন কোথাও না কোথাও সহিংস ঘটনা দেখতে পাই। এই সহিংসতা কখনোই আমাদের কাম্য নয়। আমরা কোনো সহিংসতা চাই না, আমরা সহনশীল হব। উগ্রবাদের পক্ষে আমরা থাকব না। আমরা কখনো সহিংসতা ছড়াব না। আমরা থাকব আলোর পথে, প্রীতির সাথে। আমরা চাই, বাংলাদেশসহ সারা পৃথিবীর মানুষ শান্তিতে থাকুক।’

এ ছাড়া কলেজের মেয়েদের ঝুঁকিপূর্ণ ইন্টারনেট ব্যবহার নিয়ে ‘নিরাপদ ইন্টারনেট’ ব্যবহারের ওপর কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। কর্মশালায় সহস্রাধিক তরুণ-তরুণী অংশ নেন। কর্মশালা পরিচালনা করেন পাভেল মহিতুল আলম।
আয়োজনের দ্বিতীয় পর্বে জাদুশিল্পী রাজীব বসাক জাদু দেখিয়ে উপস্থিত তরুণ ও দর্শকদের মুগ্ধ করেন।

কর্মশালায় কুইজে অংশগ্রহণকারী অর্ধশতাধিক বিজয়ীর মধ্যে ছয় মাসের কিশোর আলো বিনা মূল্যে সংগ্রহের কুপন দেওয়া হয়।

এরপর গীতিকার ও সাংবাদিক কবির বকুল সরকারি মুড়াপাড়া কলেজে বুক ক্লাবের জন্য প্রথমা প্রকাশনের ১০০ বই শিক্ষক আবু জাফর মোহাম্মদ ছালেহর হাতে তুলে দেন। পরে বেশ কয়েকটি গান পরিবেশ করেন তিনি। উপস্থিত তরুণ-তরুণীদের ‘সহিংসতায় না, মাদককে না’ শপথবাক্য পাঠ করান কবির বকুল।
এরপর মঞ্চে আসেন অবন্তী সিঁথি (সারেগামাপা), পারভেজ ও ডি রকস্টার শুভ। তাঁরা একের পর এক গান পরিবেশন করে হল মাতিয়ে রাখেন। উচ্ছ্বাস-আনন্দে মেতে ওঠেন অংশগ্রহণকারীরা।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0