অবশেষে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির সুযোগ পেল দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী আল আমিন। গতকাল শনিবার বিকেলে হাজেরা তুজ ডিগ্রি কলেজে ভর্তি হতে পেরেছে সে। তবে দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী অপর শিক্ষার্থী চট্টগ্রাম কলেজে এখনো ভর্তি হতে পারেিন। তাকে অপেক্ষা করার পরামর্শ দিয়েছে কলেজ কর্তৃপক্ষ।
কলেজে ভর্তি হতে পেরে উচ্ছ্বসিত আল আমিন জানায়, পড়ালেখা চালিয়ে যাওয়ার সুযোগ পেয়ে সে খুবই খুশি। তার ইচ্ছা এইচএসসিতে ভালো ফল করার।
ভর্তির নীতিমালায় এবার প্রতিবন্ধী কোটা না থাকায় শিক্ষা কোটায় আবেদন করে আল আমিন। কিন্তু কলেজ কর্তৃপক্ষ এই কোটায় তাকে ভর্তির সুযোগ না দেওয়ায় তার শিক্ষাজীবন নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছিল।
এই নিয়ে গতকাল প্রথম আলোয় ‘দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী দুই ছাত্র কলেজে ভর্তি হতে পারবে না’ শীর্ষক সংবাদ প্রকাশিত হয়। বিশ্বজিৎ চট্টগ্রাম কলেজে ও আল আমিন হাজেরা তুজ ডিগ্রি কলেজে শিক্ষা কোটায় ভর্তির জন্য বিবেচিত হয়।
হাজেরা তুজ ডিগ্রি কলেজের উপাধ্যক্ষ কুতুব উদ্দিন বলেন, ‘আমরা তাকে বোর্ডের পরামর্শ নিতে বলেছিলাম। এখন যেহেতু আমাদের এখানে আসন খালি আছে তাই তাকে ভর্তি করিয়ে নিয়েছি।’
অন্যদিকে বিশ্বজিৎ বসাকের অভিভাবকেরা গতকাল চট্টগ্রাম কলেজে যোগাযোগ করেন। কলেজ কর্তৃপক্ষ তাদের অপেক্ষমাণ তালিকা প্রকাশ পর্যন্ত অপেক্ষা করার পরামর্শ দেয়।
বিশ্বজিতের মামা দীপঙ্কর বসাক বলেন, কলেজ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে দু-এক দিনের মধ্যে অপেক্ষমাণ তালিকা প্রকাশ করা হবে। সে পর্যন্ত অপেক্ষা করতে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0