default-image

দীর্ঘ সাত মাস পর বুধবার ভারতের সঙ্গে ‘এয়ার বাবল’ ব্যবস্থায় বাংলাদেশের ফ্লাইট চলাচল শুরু হয়েছে। তবে প্রথম দুদিনে যাত্রী সংখ্যা বেশ কম ছিল। ছোট আকৃতির উড়োজাহাজ পাঠিয়েও ফ্লাইটগুলোর বেশির ভাগ আসনই ফাঁকা থাকছে। সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন, ভারতে যাত্রী বাড়বে কিনা সেটি আরও কয়েক দিন পর বোঝা যাবে।

  ভারতে বুধবার বেসরকারি বিমান সংস্থা ইউএস বাংলার দুটি ফ্লাইট ছিল। তাদের ঢাকা-কলকাতা ফ্লাইটে যাত্রী ছিল ২৩ জন এবং ঢাকা-চেন্নাই ফ্লাইটের যাত্রী ছিল ৩২ জন। দুই রুটেই ৭৪ আসনের ড্যাশ-৮ পাঠানো হয়েছিল। একদিন পর  বৃহস্পতিবার থেকে চালু হয়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের এয়ার বাবল ফ্লাইট। বিশেষ ব্যবস্থার এই ফ্লাইট বিকেল তিনটার দিকে ঢাকা থেকে দিল্লির উদ্দেশে রওনা দেয়। তবে দিল্লি রুটেও ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজ পাঠায় বিমান। তাতেও যাত্রী পূর্ণ হয়নি। আসা-যাওয়া মিলিয়ে ৭০ জন যাত্রী চড়েছেন বিমানে।
বিমানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোকাব্বির হোসেন বৃহস্পতিবার প্রথম আলোকে বলেন, ঢাকা-দিল্লি ফ্লাইটে যাত্রী ছিল ৪২ জন। দিল্লি থেকে ফিরবেন ২৮ জন যাত্রী।
এ ছাড়া ঢাকা-চট্টগ্রাম-চেন্নাই রুটে ইউএস বাংলার আরও একটি ফ্লাইট ছিল। এই ফ্লাইটেও যাত্রী সংখ্যা কম ছিল বলে বিমানবন্দর সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

বিজ্ঞাপন

বিশেষ ব্যবস্থায় আপাতত তিন মাসের জন্য ‘এয়ার বাবল’ ব্যবস্থায় দুই দেশের মধ্যে ফ্লাইট চলাচল করবে। বাংলাদেশ থেকে ভারতের কলকাতা, দিল্লি ও চেন্নাইয়ে ফ্লাইট চলাচল করবে। প্রতি সপ্তাহে ২৮টি ফ্লাইট বাংলাদেশ থেকে যাবে। কলকাতা ও দিল্লিতে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস, চেন্নাই ও কলকাতায় ইউএস বাংলা এবং নভোএয়ার শুধু কলকাতায় ফ্লাইট পরিচালনা করবে। অন্যদিকে ভারত থেকেও ২৮টি ফ্লাইট ঢাকায় আসবে। ভারতের এয়ার ইন্ডিয়া, ইনডিগো, স্পাইসজেট, ভিস্তারা ও গোএয়ার—পাঁচটি বিমান সংস্থার ফ্লাইট চলাচল করবে । নভেম্বর থেকে ভারতের বিমান সংস্থাগুলো বাংলাদেশে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করবে।
বেবিচক সূত্রে জানা গেছে, বিমান ঢাকা-কলকাতা রুটে সপ্তাহে ৭টি, ঢাকা-দিল্লি রুটে ৪টি এবং ঢাকা-চেন্নাই রুটে ৩টি করে ফ্লাইট পরিচালনা করবে। ইউএস বাংলা এয়ারলাইনসের ঢাকা-কলকাতায় ৬টি, ঢাকা-চেন্নাইয়ে ৪টি এবং ঢাকা-চট্টগ্রাম-চেন্নাইয়ে ৩টি করে ফ্লাইট চলবে। এ ছাড়া নভোএয়ার ঢাকা-কলকাতা রুটে প্রতি সপ্তাহে ১টি করে ফ্লাইট চালাবে। ভারতের স্পাইস জেট ১৩টি, ইনডিগো ৯টি, এয়ার ইন্ডিয়া ২টি, গো এয়ার ২টি এবং ভিসতারা ২টি করে বাংলাদেশে সাপ্তাহিক ফ্লাইট চালাবে।
করোনাভাইরাসের মহামারির কারণে গত মার্চ থেকে ফ্লাইট চলাচল বন্ধ করে ভারত। তবে চিকিৎসা, কূটনৈতিকসহ নয়টি ক্যাটাগরিতে ভারত ভিসা দিলেও পর্যটক ভিসা প্রদান বন্ধ রয়েছে। অবশ্য খুব শিগগিরই বাংলাদেশি পর্যটক ভিসা দেওয়া হবে বলে বুধবার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী।

মন্তব্য পড়ুন 0