default-image

ভারতের সঙ্গে সম্পর্ককে বাংলাদেশ অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে থাকে। পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়ে প্রতিবেশী দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতা অব্যাহত রাখা জরুরি। এ ছাড়া আঞ্চলিক সংযোগ বৃদ্ধি এ অঞ্চলের সব দেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি বয়ে আনবে।
অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সোমবার বিকেলে বাংলাদেশে নবনিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামীর সঙ্গে অনুষ্ঠিত এক ভার্চ্যুয়াল বৈঠকে এসব কথা বলেন। অর্থ মন্ত্রণালয় এক বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানায়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, তাঁরা বাণিজ্য-বিনিয়োগ, শিক্ষা-সংস্কৃতি, দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক উন্নয়ন, বাংলাদেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। ভারতীয় হাইকমিশনারকে তাঁর দায়িত্ব পালনকালে সব ধরনের সহযোগিতা দেওয়ার আশ্বাস দেন অর্থমন্ত্রী।

বিজ্ঞাপন

নবনিযুক্ত হাইকমিশনারকে স্বাগত জানিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক অত্যন্ত সুদৃঢ় ও বন্ধুত্বপূর্ণ। আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের সঙ্গে ভারতের নাম ওতপ্রোতভাবে জড়িত। বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশ ও ভারত—তিনটি নাম মুক্তিযুদ্ধের সঙ্গে নিবিড়ভাবে সম্পর্কযুক্ত। ভারত শুধু বাংলাদেশের নিকটতম প্রতিবেশীই নয়, বরং বিশ্বস্ত ও পরীক্ষিত বন্ধু।

অর্থমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ এখন বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল। পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়ে প্রতিবেশী দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতা অব্যাহত রাখা জরুরি। নবনিযুক্ত হাইকমিশনার দায়িত্ব পালনকালে উভয় দেশের সম্পর্কোন্নয়নে সর্বাত্মক প্রয়াস চালাবেন।

ভারতের নবনিযুক্ত হাইকমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী বলেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ় নেতৃত্বে দারিদ্র্য বিমোচন, নারীর ক্ষমতায়নসহ অনেক ক্ষেত্রেই বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়ার অনেক দেশ থেকে উল্লেখযোগ্যভাবে এগিয়ে আছে।

মন্তব্য পড়ুন 0