default-image

প্রতিবেশী দেশ ভারতে করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার নিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে দেশটির সঙ্গে বাংলাদেশের সীমান্ত আপাতত বন্ধ রাখা উচিত বলে মনে করছেন করোনাভাইরাস মোকাবিলায় গঠিত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ সহিদুল্লা।

আজ শনিবার রাতে তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ব্যক্তিগতভাবে তিনি মনে করেন বর্তমান পরিস্থিতিতে ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের সীমান্ত বন্ধ করা উচিত। বন্ধ করতে পারলে ভালো, আর যদি বিভিন্ন কারণে বন্ধ করা না যায়, তাহলে সীমিত আকারে নামিয়ে আনা দরকার। আর যাঁরা আসবেন তাঁদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে রাখতে হবে।

বিজ্ঞাপন

করোনাভাইরাস সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে বর্তমানে বাংলাদেশে বিধিনিষেধ চলছে, যা ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত বহাল থাকবে। চলতি মাসের প্রথম দিকে দেশে করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু বাড়তে থাকলেও কয়েক দিন ধরে সংক্রমণের হার কিছুটা কমছে। মৃত্যুর সংখ্যাও কমেছে, যদিও তা এখনো উদ্বেগজনক। করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৮৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে ২ হাজার ৬৯৭ জন।

অপর দিকে ভারতে গত তিন দিনে প্রায় ১০ লাখ মানুষের করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। শনিবার পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৪৬ হাজার ৮৮৬ জনের। এই সময়ে এ ভাইরাসে প্রাণ হারিয়েছেন ২ হাজার ৬২৪ জন। ভারতের রাজধানী দিল্লির হাসপাতালগুলোতে কোভিড রোগীদের অক্সিজেন সরবরাহে টালমাটাল পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন