জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বলেছেন, ভূমিবিরোধকে কেন্দ্র করেই নানিয়ারচরে সহিংস ঘটনা ঘটেছে। পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়িত না হওয়ার উপসর্গ। ভূমি কমিশনকে কার্যকর করাসহ পার্বত্য চুক্তি পূর্ণাঙ্গভাবে বাস্তবায়িত হলে বিরোধ থাকবে না।
গতকাল রোববার রাঙামাটির নানিয়ারচরে হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত আদিবাসী গ্রাম পরিদর্শন শেষে করুণা বনবিহার মাঠে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন মিজানুর রহমান। সাম্প্রদায়িক উসকানি ও শান্তি বিনষ্টের জন্য সুপরিকল্পিতভাবে হামলা হয়েছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, শান্তি বিঘ্নিত হলে যারা লাভবান হয়, তারাই এ ঘটনা ঘটিয়েছে।
মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান বলেন, ‘আনারসবাগান নষ্ট করা এবং বসতবাড়িতে আগুন লাগানো দুটি ঘটনাই ফৌজদারি অপরাধ। অপরাধীদের যত দ্রুত চিহ্নিত করে বিচারের আওতায় আনা যাবে, ততই মঙ্গল।’ তিনি বলেন, ‘আমরা এত দিন চেয়েছি প্রশাসন ব্যবস্থা নিক। তবে আমরা লক্ষ করছিলাম, ঘটনার পর যেসব ব্যবস্থা গৃহীত হয়েছে তা পর্যাপ্ত নয়। শুধু গৃহনির্মাণ, ত্রাণসামগ্রী বিতরণ যথেষ্ট নয়। পাহাড়ি-বাঙালির মধ্যে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠার কাজ প্রশাসনের পক্ষ থেকে করা হয়নি।’
পরিদর্শনকালে মানবাধিকার কমিশনের সদস্য নিরূপা দেওয়ান, রাঙামাটির অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. সাইফুদ্দিন আহমেদ, নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শক্তিমান চাকমা উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন