ভৈরব বাসস্ট্যান্ড এলাকায় শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

বিজ্ঞাপন
default-image

কিশোরগঞ্জের ভৈরব বাসস্ট্যান্ড এলাকায় শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত উপজেলা প্রশাসনের নেতৃত্বে এই অভিযান চলে। অভিযানে নিরাপদ সড়ক চাই ভৈরব শাখা, হাইওয়ে পুলিশ ও সওজ কর্তৃপক্ষ সহযোগিতা করেন। নেতৃত্ব দেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) লুবনা ফারজানা।

উপজেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ভৈরব বাসস্ট্যান্ড একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান। এই বাসস্ট্যান্ডে ভৈরব-ময়মনসিংহ আঞ্চলিক সড়ক এসে যুক্ত হয়েছে। কিন্তু এখানে অবৈধভাবে বাসের অসংখ্য কাউন্টারসহ নানা ধরনের দোকানপাট গড়ে উঠেছে। বাসস্ট্যান্ডের গোল চত্বর লাগোয়া স্থানে কাউন্টার থাকায় সড়কের ওপর বাস থেমে যাত্রী উঠানামা করানো হয়। তাই সব সময়ই যানজট লেগে থাকে। প্রতিটি গাড়িকে ২৫০ মিটার জায়গা অতিক্রম করতে ১৫ থেকে ২০ মিনিট সময় লেগে যায়। এ অবস্থায় উপজেলা প্রশাসন অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের পরিকল্পনা করে। তা ছাড়া নিরাপদ সড়ক চাই ভৈরব শাখা থেকে জোরালো দাবি উঠে স্থাপনা উচ্ছেদের।

আজ বেলা ১১টার দিকে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি ভাস্কর্য ‘দুর্জয় ভৈরব’ চত্বরে নিরাপদ সড়ক চাই সংগঠনের পক্ষ থেকে বাসস্ট্যান্ড এলাকা যানজটমুক্ত রাখতে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের দাবিতে সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় বক্তাদের ভাষ্য, অধিক লাভের আশায় এক শ্রেণির সুবিধাবাদী মানুষ ভৈরব বাসস্ট্যান্ডে রাজত্ব কায়েম করে নিজের মতো ব্যবহার করে আসছে। শ্রেণিটির কারণে এই স্থানে মহাসড়কের কোনো নিয়ম কানুন এখন আর সক্রিয় নেই। বাসস্ট্যান্ড এলাকা যানজট মুক্ত রাখতে হলে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের বিকল্প নেই বলে মন্তব্য করেন বক্তারা।

ভৈরব সওজ-এর বিভাগীয় প্রকৌশলী মো. মাহমুদ আল নূর সালেকিন বলেন, মহাসড়কের ফুটপাত দখল করে আছে প্রভাবশালীরা। তাই চাইলে অনেক সময় তেমন কিছু করার থাকে না।

নিরাপদ সড়ক চাই ভৈরব শাখার সাধারণ সম্পাদক মো. আলাল উদ্দিন বলেন, সড়ক নিরাপদ দিবস উপলক্ষে ভৈরব শাখা মাসব্যাপী কর্মসূচি পালন করে। প্রতিটি কর্মসূচিতে দাবি ছিল ভৈরব বাসস্ট্যান্ডকে যানজটমুক্ত রাখা। অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ হওয়ায় এখন থেকে বাসস্ট্যান্ড এলাকা যানজট মুক্ত হবে, এমনটাই আশা।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন