default-image

মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে মাসিক বেতন বাবদ আদায় করা অর্থ আগামী ২২ ফেব্রুয়ারির মধ্যে স্কুল কর্তৃপক্ষকে ফেরত দিতে হবে।

আজ মঙ্গলবার জামালপুর-৫ আসনের সাংসদ মোজাফফর হোসেনের প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি এ কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজে বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে মাসিক বেতন বাবদ ইতিপূর্বে এক হাজার ৫০ টাকা এবং চলতি বছরে এক হাজার ৩৫০ টাকা হারে আদায়ের বিষয়টি মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড ঢাকা কর্তৃক তদন্ত করা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের বিভিন্ন শাখায় কর্মরত শিক্ষক ও কর্মচারীর সংখ্যা ৮৮৭ জন। এর মধ্যে ১১৬ জন শিক্ষক ও কর্মচারী সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত। বাকি ৭৭১ জন শিক্ষক ও কর্মচারী সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত নয়। শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে আদায় করা অর্থ ওই ৭৭১ জন শিক্ষক ও কর্মচারীর মাসিক বেতনভাতা, বাড়িভাড়া ও বার্ষিক ইনক্রিমেন্টসহ যাবতীয় সুযোগ-সুবিধা বাবদ খরচ করা হয়।

যেহেতু মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে মাসিক বেতন আদায় করেছে সেহেতু সেই অর্থ আগামী ২২ ফেব্রুয়ারির মধ্যে শিক্ষার্থীদের ফেরত দিতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

আরও ৬৫ হাজার মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম হচ্ছে

সংরক্ষিত নারী আসনের সাংসদ সৈয়দা রুবিনা আক্তারের প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে ২০০৯ থেকে এ পর্যন্ত নির্বাচিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৩২ হাজার ৬৬৭টি মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম, এক হাজার ৪১১টি কম্পিউটার ল্যাব, ৩১টি ডিজিটাল ল্যাংগুয়েজ ল্যাবরেটরি, ৬৪০টি আইসিটি লার্নিং সেন্টার এবং ৫০টি ক্লাস্টার সেন্টার স্থাপন করা হয়েছে। আরও ৬৫ হাজার ৬০০টি মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম স্থাপনের কাজ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

আছলাম হোসেন সওদাগরের প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, দেশে যেসব উপজেলায় সরকারি বিদ্যালয় ও কলেজ নেই সেসব উপজেলায় একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজকে সরকারি করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এরই ধারাবাহিকতায় প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী ২০১৮ ও ২০১৯ সালে ২৯৬টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং ৩০২টি বেসরকারি কলেজ সরকারি করা হয়েছে।

কাজিম উদ্দিন আহম্মেদের প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, শ্রেণি কক্ষে সঠিকভাবে শিক্ষা প্রদানের জন্য ২০১৮-২০১৯ অর্থ বছরে ৬৫ হাজার ৮৫১ জন শিক্ষককে সৃজনশীল বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন