জন্ম থেকে দুই হাতের অর্ধেক অংশ নেই রিমনের। তবে হাত না থাকলেও রিমন দমে যায়নি। শারীরিক প্রতিবন্ধিত্বের বাধা জয় করে রিমন এবার এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে।

রিমন মিয়া (১৬) গাইবান্ধার সাঘাটা পাইলট উচ্চবিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে। এ বিদ্যালয়ে সে ষষ্ঠ শ্রেণি থেকে পড়াশোনা করছে। তার বাড়ি সাঘাটা উপজেলার হাসিলকান্দি গ্রামে। এর আগে রিমন সাঘাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক শিক্ষা শেষ করে।

গত শনিবার ইংরেজি দ্বিতীয় পত্রের পরীক্ষার দিন সাঘাটা পাইলট বালিকা উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, বাকি ছাত্রদের মতো বেঞ্চে বসে পরীক্ষা দিচ্ছে রিমন। দুই হাতের মাঝে কলম চেপে ধরে দ্রুত লিখে যাচ্ছে সে। পরীক্ষা শেষে রিমন মিয়া বলে, ‘শারীরিক সমস্যা কোনো বাধা নয়। লেখাপড়ার জন্য ইচ্ছেশক্তি যথেষ্ট।’ রিমন আরও বলে, শিক্ষক ও বাবা-মা সবাই তাকে লেখাপড়ায় উৎসাহ দেন। তাই সে পারছে।

সাঘাটা পাইলট উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোজাম্মেল হক বলেন, লেখাপড়ায় রিমন মিয়ার প্রচণ্ড আগ্রহ। শ্রেণিকক্ষে পাঠদানের সময় সে খুবই মনোযোগী ছিল।

রিমনের বাবা গোলাম হোসেন একজন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী। মা নার্গিস বেগম গৃহিণী। বসতভিটা ছাড়া সহায়সম্বল বলতে কিছু নেই। পাঁচ সদস্যের সংসার তাঁদের। রিমনের মা বলেন, ‘জন্মের পর থেকেই রিমনের হাতের কনুই থেকে আঙুল পর্যন্ত নাই। আল্লাহর ইচ্ছাতেই সব হয়। এ কথা ভেবে আমরা সব মেনে নিই।’

তিন ভাই-বোনের মধ্যে রিমন সবার বড়। রিমনের বাবা গোলাম হোসেন বলেন, ‘কষ্ট করে তিন ছেলে-মেয়ের লেখাপড়ার খরচ চালাচ্ছি। রিমন এসএসসি পাস করলে ওপরের শ্রেণিতে কীভাবে পড়াব, তা নিয়ে চিন্তায় আছি।’

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন