বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

রোহিঙ্গা শিবিরের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার ওপর জোর দিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘এ ব্যাপারে আমরা কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছি। আমরা সেখানে কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা ঘটতে দেব না। অবশ্যই আমরা শক্ত অবস্থান নেব। ভবিষ্যতে যদি এ ধরনের ঘটনা ঘটে, সে জন্য আমরা বসে থাকছি না। প্রয়োজনে যা যা দরকার, আমরা তা করব।’
ভাসানচরে সরিয়ে নেওয়া রোহিঙ্গাদের মানবিক সহায়তায় জাতিসংঘের যুক্ততার ব্যাপারে সবশেষ অগ্রগতি জানতে চাইলে তিনি বলেন, সবকিছু চূড়ান্ত হয়ে আছে। যেকোনো মুহূর্তে তাঁরা সেখানে যাবেন।

ভাসানচর থেকে রোহিঙ্গাদের পালিয়ে যাওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘তারা পালিয়ে যাবে না কেন? এটা তো তাদের দেশ না। বিভিন্ন দেশে তাদের আত্মীয়স্বজন আছে। তারা তাদের ডাকাডাকি করছে। তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে, তারা সেখানে যাচ্ছে। তো তারা চলে গেলে আমাদের কী? আমরা তো তাদের দাওয়াত দিয়ে আনিনি!’

সম্পূরক প্রশ্নে রোহিঙ্গাদের ভাসানচর থেকে দেশের অন্যান্য স্থানে যাওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আসলে এগুলো একটু বাড়াবাড়ি করে বলা হচ্ছে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন