জেলায় এই পর্যন্ত র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন ও আরটি–পিসিআর পদ্ধতিতে ২১ হাজার ৭৩১ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে ২ হাজার ৯৬৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। বর্তমানে জেলায় ৫২৮ জন করোনায় আক্রান্ত রোগী আছেন। তাঁদের মধ্যে হাসপাতাল ভর্তি রয়েছেন ১২ জন। আর বাকিরা বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে জেলার সিভিল সার্জন মো. সফিকুল ইসলাম বলেন, ‘জেলায় করোনা সংক্রমণের হার বাড়ছে। একই সঙ্গে মৃত্যুর সংখ্যাও বেড়েছে। সংক্রমণ ঠেকাতে আমরা স্বাস্থ্য বিভাগ কাজ করে যাচ্ছি। একই সঙ্গে সারা দেশের মতো জেলায় কঠোর লকডাউন শুরু হয়েছে। আশা করছি, করোনা সংক্রমণ কমে আসবে।’

তবে সংক্রমণ বাড়লেও তা মোকাবিলার জন্য প্রস্তুতি আছেন বলে জানিয়েছেন জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক রহিমা খাতুন।

তিনি বলেন, ‘গত কয়েক দিনে সংক্রমণ কিছুটা বাড়লেও তা আমাদের নিয়ন্ত্রণে আছে। এরপরও রোগী বেড়ে গেলে আমরা প্রস্তুত আছি। সদর হাসপাতালের কেন্দ্রীয় অক্সিজেন সেবা এই সপ্তাহ থেকে চালু হওয়ার কথা রয়েছে। আইসিইউ শয্যা তৈরির জন্যও আমাদের প্রস্তাব পাঠানো আছে। আশা করছি, এসব খুব দ্রুত বাস্তবায়ন হবে।’

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন