ক্ষমতার দ্বন্দ্বে মানুষ হত্যা বন্ধ ও ত্বকী হত্যাকাণ্ডের ২৩ মাস পূর্তি উপলক্ষে গতকাল রোববার হত্যাকারী ও হত্যাকারীদের নির্দেশদাতাদের গ্রেপ্তারের দাবিতে আলোর মিছিল ও মোমবাতি প্রজ্বালন করেছে নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোট।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, গতকাল সন্ধ্যা সাতটার দিকে শহরের ডিআইটি বাণিজ্যিক এলাকা থেকে বের হয়ে আলোর মিছিলটি চাষাঢ়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে মোমবাতি প্রজ্বালন করা হয়। অনুষ্ঠানে নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি প্রদীপ ঘোষের নেতৃত্বে উপস্থিত ছিলেন নিহত ত্বকীর বাবা সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রফিউর রাব্বি, নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান, সংগঠনের সাবেক সভাপতি ভবানী শংকর রায়, কার্যকরী সদস্য ধীমান সাহা, সাধারণ সম্পাদক মনি সুপান্থ, সিপিবির জেলা কমিটির সভাপতি হাফিজুল ইসলাম, শ্রমিক নেতা আবু নাঈম খান, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব শিশির সাহা, সমগীত সাংস্কৃতিক সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি অমল আকাশ, গার্মেন্ট শ্রমিক সংহতির সাধারণ সম্পাদক মিনহাজুল হক প্রমুখ।
রফিউর রাব্বি বলেন, ‘বর্তমানে আমরা দুঃসময়ের মুখোমুখি। এ অবস্থা আমাদের দেশের দুটি রাজনৈতিক দল তৈরি করেছে। স্বাধীনতার পর দুটি দল ৪৩ বছর রাষ্ট্র ক্ষমতায় ছিল। তারাই আমাদের দেশকে এ অবস্থায় দাঁড় করিয়েছে। তারা ক্ষমতায় টিকে থাকতে চায়। ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য সন্ত্রাস গডফাদার লালন করে। তারা রাজনীতির নামে অপরাজনীতি করছে। ত্বকীর আগে চঞ্চল, আশ্বিক, ভুলুকে হত্যা করা হয়েছে। এসব হত্যাকাণ্ডের পর সরকার পদক্ষেপ না নেওয়ায় পরে সাত খুনের মতো ঘটনা ঘটেছে।’
২০১৩ সালের ৬ মার্চ বিকেলে শহরের শায়েস্তা খান সড়কের বাসা থেকে বের হয়ে ত্বকী নিখোঁজ হয়। ৮ মার্চ সকালে শহরের চারারগোপ শীতলক্ষ্যা নদী থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন