বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নিউরো সার্জারি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক নোমান খালেদ চৌধুরী আজ শনিবার সকালে প্রথম আলোকে জানান, মাহাদির অনেক উন্নতি হয়েছে, শারীরিক অবস্থাও ভালো। সবকিছু ঠিক থাকলে কাল রোববার তাঁকে আইসিইউ থেকে বের করে কেবিনে দেওয়ার একটা সম্ভাবনা রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ৩০ অক্টোবর চমেক ক্যাম্পাসের সামনের রাস্তায় মাহাদির ওপর ছাত্রলীগের একটি পক্ষ হামলা করে। এ পক্ষটি সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের অনুসারী বলে অভিযোগ। এর আগের দিন ২৯ অক্টোবর রাতে মেডিকেল প্রধান ছাত্রাবাসে ছাত্রলীগের শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী ও আ জ ম নাছির উদ্দীন পক্ষের মধ্যে মারামারি হয়, তখন দুজন আহত হন। ওই ঘটনার জেরে পরদিন মাহাদির ওপর হামলা হয়। এমবিবিএস দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র মাহাদি মহিবুল হাসান পক্ষের সমর্থক। হামলায় মাথায় আঘাত পাওয়া মাহাদির ওই দিনই অস্ত্রোপচার হয়। তাঁর মাথার খুলির একটি হাড় খুলে পেটের চামড়ার নিচে রেখে দেওয়া হয়। আরও সুস্থ হওয়ার পর হাড়টি আবার প্রতিস্থাপন করা হবে। এ ঘটনায় তিনটি পাল্টাপাল্টি মামলা হয়েছে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন