প্লট বরাদ্দসংক্রান্ত দুর্নীতির মামলায় সাবেক গণপূর্তমন্ত্রী ও বিএনপির নেতা মির্জা আব্বাসসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। গতকাল মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের ভারপ্রাপ্ত বিচারক ইমরুল কায়েস এ আদেশ দেন।
ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন সমবায় সমিতির প্লট বরাদ্দে অনিয়মের অভিযোগে গত বছরের ৬ মার্চ শাহবাগ থানায় দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) এ মামলা করে। দুদক তদন্ত করে চলতি বছরের ১৬ ফেব্রুয়ারি মির্জা আব্বাসসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয়। গতকাল আদালত অভিযোগপত্র আমলে নিয়ে এই পাঁচজনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন। আদালত আগামী ২৫ মার্চ তাঁদের গ্রেপ্তারসংক্রান্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দিন ধার্য করেছেন।
মির্জা আব্বাস ছাড়া অন্য চারজন হলেন সাবেক গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী আলমগীর কবির, গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব (বর্তমানে অবসরপ্রাপ্ত) বিজন কান্তি সরকার, জাতীয় গৃহায়ণ কর্তৃপক্ষের ক্যাশিয়ার মো. মনছুর আলম ও হিসাব সহকারী মতিয়ার রহমান।
এ ছাড়া তদন্ত কর্মকর্তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মামলার এজাহারভুক্ত আসামি সাবেক উপপরিচালক (ভূমি) মো. আজহারুল হকের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যপ্রমাণ না পাওয়ায় তাঁকে মামলার দায় থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।
মামলায় অভিযোগ করা হয়, ২০০৬ সালে মির্জা আব্বাস গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী থাকাকালে অন্য আসামিদের সঙ্গে পরস্পর যোগসাজশে ক্ষমতার অপব্যবহার ও দুর্নীতির মাধ্যমে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন সমবায় সমিতি লিমিটেডকে বাজারমূল্যের চেয়ে কম মূল্যে প্লট বরাদ্দ দেন। আসামিরা ১৮ কোটি ৯১ লাখ ৩০ হাজার ৯০০ টাকা মূল্যের সরকারি সাত একর সম্পত্তি ৩ কোটি ৩৮ লাখ ৮০ হাজার টাকা মূল্যে বরাদ্দ দিয়ে ১৫ কোটি ৫২ লাখ ৫০ হাজার ৯০০ টাকা আত্মসাৎ করে সরকারের ক্ষতিসাধন করেন।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন