বাংলাদেশের ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও দলিলাদি নিয়ে ‘একাত্তর বাংলাদেশ’ নামে একটি ওয়েবসাইট চালু হয়েছে।  www.71bangladesh.com ঠিকানায় গেলে এটি পাওয়া যাবে।

গতকাল সোমবার রাজধানীর মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ওয়েবসাইটটির উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আতিউর রহমান। তিনি বলেন, ‘আমি একজন অর্থনীতিবিদ। সেই হিসেবেই বলছি, উন্নয়নেও ইতিহাস বড় ভূমিকা রাখতে পারে। আর বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অর্জন মুক্তিযুদ্ধ। সেই মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে এই আর্কাইভ হয়েছে। আমি আশা করছি, এর মাধ্যমে তরুণ প্রজন্ম মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানতে পারবে।’

একাত্তর বাংলাদেশ ওয়েবসাইটটির প্রধান সম্পাদক জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য আনোয়ার হোসেন জানান, মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক এই আর্কাইভে সংযোজিত সব তথ্য হবে বস্তুনিষ্ঠ, প্রামাণ্য এবং সরাসরি সাক্ষাৎকারভিত্তিক। এসব বিবেচনা সামনে রেখে প্রাথমিকভাবে আর্কাইভে ১২টি মূল বিভাগ ও ৭০টি উপবিভাগে তথ্যভান্ডার গড়ে উঠতে থাকবে।

অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি মফিদুল হক বলেন, বাংলাদেশ এখন একটি নতুন পথে যাত্রা শুরু করেছে। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার চলছে এবং একের পর এক মামলার রায় হচ্ছে। এটি সম্ভব হয়েছে ২০০৮ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনার কারণে। নতুন ভোটাররা যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিতে ভোট দিয়েছিলেন।

মুক্তিযুদ্ধ গবেষক এম এ হাসান বলেন, মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ মানুষ শহীদ হয়েছে। এক কোটি লোক উদ্বাস্তু হয়েছে। সাড়ে চার লাখ নারীর সম্ভ্রমহানি হয়েছে। সঠিকভাবে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস তুলে ধরলেই এই বিশাল আত্মত্যাগের মূল্য দেওয়া যাবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক আশফাক হোসেন বলেন, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের অনেক ইতিহাস-দলিলাদি সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে আছে। সেগুলো সংগ্রহ করতে হবে। 

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন