পোলট্রি খাতকে এমনভাবে এগিয়ে নিতে হবে যেন বাংলাদেশ থেকে মুরগি ও ডিম রপ্তানি সম্ভব হয়। বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করতে পোলট্রি খাতকে নেতৃত্বের ভূমিকা নিতে হবে। সে জন্য সরকারি ও বেসরকারি খাতের মধ্যে সহযোগিতার সম্পর্ক গড়ে তোলা দরকার।
নবম আন্তর্জাতিক পোলট্রি শো ও সেমিনার-২০১৫-এর উদ্বোধনী দিনে কৃষিমন্ত্রী, পোলট্রি বিজ্ঞানী ও উদ্যোক্তারা এ কথা বলেন। গত বৃহস্পতিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এই পোলট্রি শো ও সেমিনার শুরু হয়। আজ এই মেলা শেষ হচ্ছে।
বৃহস্পতিবার পোলট্রি শোর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, বিশৃঙ্খলাকারীরা হচ্ছে সভ্যতার প্লেগ রোগের মতো। এটা অনেকটা পোলট্রিশিল্পে ২০০৭ সালে আঘাত হানা এভিয়ান ইনফ্লুয়েঞ্জার মতো। ইনফ্লুয়েঞ্জা যেমন ক্ষণস্থায়ী, তেমনি নৈরাজ্য সৃষ্টিকারীরাও কিছুদিন পর থাকবে না।
কৃষিমন্ত্রী আরও বলেন, দেশে কিছু অস্বাভাবিক ঘটনা ঘটছে। তার প্রভাব পোলট্রিশিল্পের ওপরও পড়ছে। সরকার বাস্তব ঘটনাকে এড়িয়ে কোনো কাজ করবে না। তবে একটি সভ্য দেশে সভ্য সরকার যেভাবে দেশ চালায়, আওয়ামী লীগ সেভাবেই দেশ চালাচ্ছে। সরকার যা করবে তা গণতান্ত্রিক কাঠামোর মধ্যে থেকে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে করবে।
বিশ্ব পোলট্রি বিজ্ঞান সমিতির বাংলাদেশ শাখা আয়োজিত এ মেলায় দেশের ২০৪টি ও আন্তর্জাতিক ৯৩টি পোলট্রিশিল্পভিত্তিক প্রতিষ্ঠান অংশ নিচ্ছে। এর প্লাটিনাম স্পনসর হিসেবে রয়েছে রেনাটা এনিমেল হেলথ, এসিআই লিমিটেড, গোল্ড স্পনসর নোভাস, নারিশ, কামবারল্যান্ড, কেমিন। আর সিলভার স্পনসর হিসেবে রয়েছে আফতাব বহুমুখী ফার্মস লিমিটেড, অলটেক, এভন।
বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব ইউনুসুর রহমান আশা প্রকাশ করেন, পোলট্রি খাত দেশের চাহিদা মিটিয়ে একসময় বিদেশে রপ্তানি করবে। বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করার ক্ষেত্রে পোলট্রি খাত ভূমিকা রাখবে।
বিশ্ব পোলট্রি বিজ্ঞান সমিতির সভাপতি অধ্যাপক আর এন সিলভা বাংলাদেশের প্রাণিজ আমিষের চাহিদা পূরণে পোলট্রি খাতের প্রশংসা করে বলেন, বাংলাদেশের মতো এত দ্রুততম সময়ে এই শিল্পের বিকাশ খুব কম দেশেই হয়েছে।
অনুষ্ঠানে আরও বক্তৃতা করেন বিশ্ব পোলট্রি বিজ্ঞান সমিতির সাধারণ সম্পাদক আর ডব্লিউ এ ডব্লিউ মুল্ডার, সমিতির বাংলাদেশ শাখার সভাপতি মশিউর রহমান ও প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অজয় কুমার রায়।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন