default-image

কারাবন্দী বাংলাদেশি লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর ঘটনার স্বচ্ছ তদন্তের আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘের মানবাধিকার-সংক্রান্ত হাইকমিশনার মিশেল ব্যাশুলে।

মুশতাক আহমেদকে যে আইনের আওতায় অভিযুক্ত করা হয়েছিল, সেই ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনের পর্যালোচনা করারও আহ্বান জানিয়েছেন সংস্থাটির এই শীর্ষ কর্মকর্তা।

জাতিসংঘের ওয়েবসাইটে আজ সোমবার এ-সংক্রান্ত প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হয়। তাতে বলা হয়, কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে সরকারের কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করে লেখা একটি নিবন্ধ প্রকাশ ও তা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে শেয়ার করার অভিযোগে মুশতাক আহমেদকে আটক রাখা হয়েছিল। বিচার সম্পন্ন হওয়ার আগেই প্রায় ৯ মাস তিনি কারাগারে বন্দী ছিলেন। গত ২৫ ফেব্রুয়ারি তাঁর মৃত্যু হয়।

মিশেল ব্যাশুলে বলেন, মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর বিষয়ে সরকারকে দ্রুত, স্বচ্ছ ও স্বাধীন একটি তদন্ত নিশ্চিত করতে হবে। মুশতাক আহমেদকে যে ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনে অভিযুক্ত করা হয়েছিল, সেটির পর্যালোচনা করার আহ্বান জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন

জাতিসংঘের মানবাধিকার-সংক্রান্ত হাইকমিশনার আরও বলেন, ‘জাতিসংঘের মানবাধিকার-সংক্রান্ত বিভিন্ন সংস্থা অনেক দিন ধরেই ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনের বিভিন্ন ধারা ও সেগুলোর ব্যাখ্যা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে আসছে। এই আইন সরকারের সমালোচনাকে শাস্তির আওতায় আনছে।’

মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর ঘটনায় বিচার চাইতে করা বিক্ষোভের বিরুদ্ধে স্থানীয় পুলিশ বাহিনীর শক্তি প্রয়োগের অভিযোগ নিয়েও কথা বলেছেন মিশেল ব্যাশুলে। এ ব্যাপারে প্রকাশিত সংবাদের বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন তিনি।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন